মহাভারত । Mahabharata

বাংলা মহাভারত । Bangla Mahabharata

বাংলা মহাভারত – সাম্প্রতিক আপডেট

১৮১. আগ্নেয়গিরি-বিবরণ

১৮১. আগ্নেয়গিরি-বিবরণ একাশীত্যধিকশততম অধ্যায় গন্ধর্বরাজ কহিলেন, হে অর্জুন! ভগবান্ পরাশর মহর্ষি বশিষ্ঠকর্তৃক এইরূপ আদিষ্ট হইয়া সৰ্বজন পরাভব হইতে আত্মক্রোধ সম্বরণ করিলেন। কিন্তু পিতৃবধরূপ মহাপরাধ স্মরণপূর্বক অতি বিস্তীর্ণ এক রাক্ষসপত্রানুষ্ঠানে প্রবৃত্ত হইলেন। ঐ যজ্ঞে...

১৮০. বাড়ব-বহ্নির উৎপত্তিকথা

১৮০. বাড়ব-বহ্নির উৎপত্তিকথা অশীত্যধিকশততম অধ্যায়। ঔর্ব কহিলেন, হে পিতৃগণ! আমি ক্রোধমূর্চ্ছিত হইয়া সৰ্বলোক সংহারের যে প্রতিজ্ঞা করিয়াছি, তাহা অন্যথা হইবে না। বৃথা রোষ ও বৃথা প্রতিজ্ঞা করিতে আমার অভিরুচি হয় না। ক্ষত্রিয়দিগের অত্যাচারে যদি প্রতীকার না হয়, তাহা হইলে...

১৭৯. ঔর্ব ঋষির জন্মবৃত্তান্ত

১৭৯. ঔর্ব ঋষির জন্মবৃত্তান্ত ঊনাশীত্যধিকশততম অধ্যায়। ব্রাহ্মণী কহিলেন, হে বৎস ক্ষত্রিয়গণ! আমি ক্রোধপরায়ণ হইয়া তোমাদিগের চক্ষুঃ গ্ৰহণ করি নাই। মদীয় ঊরুসম্ভব ভার্গব তোমাদিগের উপর অদ্য রোপরবশ হইয়াছেন। তিনিই বন্ধুবান্ধবগণের নিধনদশা স্মরণ করিয়া কোপাকুলিতচিত্তে তোমাদিগের...

১৭৮. পরাশর-জন্মকথা, ভার্গবগণের প্রতি ক্ষত্রিয়ের ক্রোধ

১৭৮. পরাশর-জন্মকথা, ভার্গবগণের প্রতি ক্ষত্রিয়ের ক্রোধ অষ্টসপ্তত্যধিকশততম অধ্যায়। গন্ধর্বরাজ কহিলেন, হে অর্জুন! অনন্তর অদৃশ্যন্তী ভর্তৃসদৃশ এক বংশধর কুমার প্রসব করিলেন। ভগবান্ বশিষ্ঠদেব জাতমাত্রেই পৌত্রের জাতকর্মাদি ক্রিয়াকলাপ নির্বাহ করিয়া তাঁহার নাম পরাশর রাখিলেন।...

১৭৭. বিপাশা শতদ্রুপরিচিতি

১৭৭. বিপাশা শতদ্রুপরিচিতি সপ্তসপ্তত্যধিকশততম অধ্যায় গন্ধর্বরাজ কহিলেন, হে অর্জুন! তৎপরে মহর্ষি বশিষ্ঠ পুত্রশূন্য আশ্রমপদ-দর্শনে সাতিশয় শোকাকুল হইয়া তথা হইতে পুনরায় নিষ্ক্রান্ত হইলেন। কতক দূর যাইয়া দেখিলেন, এক স্রোতস্বতী বর্ষাপ্রভাবে অতি বেগবতী ও বারিপূর্ণ হইয়া...

১৭৬. কল্মাষ্পাদ-কাহিনী, কল্মাষপাদের রাক্ষসত্বপ্রাপ্তি, বশিষ্ঠের অলৌকিক উপেক্ষা

১৭৬. কল্মাষ্পাদ-কাহিনী, কল্মাষপাদের রাক্ষসত্বপ্রাপ্তি, বশিষ্ঠের অলৌকিক উপেক্ষা ষটসপ্তত্যধিকশততম অধ্যায়। গন্ধর্বরাজ কহিলেন, হে অর্জুন! দ্যুলোকে কল্মাষপাদ নামে এক অলৌকিক বলসম্পন্ন ও ইক্ষ্বাকুকুলোৎপন্ন রাজা ছিলেন। একদা তিনি মৃগয়ার্থে রাজধানী হইতে নির্গত হইয়া এক অরণ্যানী...

বাংলা মহাভারত - সূচীপত্র