১৬.আশ্রমিক পর্ব্ব

০১. ধৃতরাষ্ট্রের বৈরাগ্য ও বিদুরের সহিত কথোপকথন

জিজ্ঞাসেন জন্মেজয়কহ মহামুনি। তদন্তরে কি কর্ম্ম হইল তাহা শুনি।। পিতামহ উপাখ্যান অপূর্ব্ব চরিএ। তোমার প্রসাদে শুনি হইব পবিত্র।। অম্বমেধ যজ্ঞ শেষে পিতামহগণ। কি কি কর্ম্ম করিলেন কহ তপোধন।। কি করিল অন্ধরাজ সুবল নন্দিনী। নারীগণ কি করিল কহ শুনি মুনি।। শুনিতে আনন্দ বড় জন্মায়...

০২. ধৃতরাষ্ট্রের বনগমনেচ্ছা শুনিয়া যুধিষ্ঠিরের খেদোক্তি

জিজ্ঞাসেন জন্মেজয় কহ মুনিবর। কহ শুনি কিবা কর্ম্ম হল তারপর।। মুনি বলে শুন কুরুকুল অধিকারী। বিদুর আইল যুধিষ্ঠির বরাবরি।। রাজার নিকটে বসি বলয়ে বচন। অবধানে শুন রাজা ধর্ম্মের নন্দন।। পরম ভাজন তুমি সাদু সুপন্ডিত। তব গুণে বসুমতী হইল পূর্ণিত।। তোমা হৈতে কুরুকুল পবিত্র হইল।...

০৩. ধৃতরাষ্ট্র ও গান্ধারীর কথোপকথন

এইরূপে অন্ধরাজ ভাবিতে ভাবিতে। কাটালেন পঞ্চদশ বর্ষ হস্তিনাতে।। ভোজনে না রুচে অন্ন নিদ্রা নাহি হয়। নিরন্তর অন্ধরাজ চিন্তিত হৃদয়।। কি করিব, কি হইবে, চিন্তা অনুক্ষণ। গৃহবাস হৈল মোর নিগড় বন্ধন।। যুধিষ্ঠির কদাচিৎ না ছাড়িবে মোরে। কি কর্ম্ম করিব, বৃদ্ধ গৃহ-কারাগারে।। কিমতে...

০৪. ধৃতরাষ্ট্র, গান্ধারী ও বিদুরের অরণ্যযাত্রা শ্রবণে কুন্তীর আগমন

রজনী প্রভাত,                     উঠি নরনাথ, বিদুরে ডাকিয়া আনি। গদ গদ স্বরে,                     কহেন বিদুরে, ধৃতরাষ্ট্র নৃপমণি।। এস ভাই মোর,                     প্রাণের দোসর, সাধু সর্ব্ব গুণাশ্রয়। দেবগুরু জিনি,                     বুদ্ধিমত্ত গণি, ক্ষিতি সম ক্ষমাময়।।...

০৫. ধৃতরাষ্ট্র, গান্ধারী, কুন্তী, বিদুর ও সঞ্জয়ের অরণ্যযাত্রা

ধৃতরাষ্ট্র রাজা যান গহন কানন। শুনিয়া ব্যাকুল চিত্ত ধর্ম্মের নন্দন।। ভ্রাতৃগণ কৃষ্ণাসহ আসি দৌড়াদৌড়ি। অন্ধরাজ গান্ধারী কুন্তীর পায়ে পড়ি।। ধূলায় ধূসর হৈয়া করয়ে ক্রন্দন। আনাথ হইল আজি পান্ডুপুত্রগণ।। পিতৃশোক নাহি জানি তোমার কারণে সর্ব্বশোক পাসরিনু তোমা দরশনে।। তোমার বিহনে...

০৬. ধৃতরাষ্ট্রের আশ্রমে যুধিষ্ঠিরাদির আগমন ও বিদুরের দেহত্যাগ

মুনি বলে শুন জন্মজয় নরপতি। গৃহে যান ধর্ম্মরাজ শোকাকুল মতি।। ভীমার্জ্জুন মাদ্রীসুত পাঞ্চাল কুমারী। ধৃতরাষ্ট্র বধূগণ দুঃশলা সুন্দরী।। শোকাকুল হয়ে সবে কান্দে সর্ব্বজন। রজনী দিবস শোক নহে নিবারণ।। না রুচে আহার জল সদা ঝরে আঁখি। শোকাকুল মন সবে হৈল বড় দুঃখী।। ধর্ম্ম অগ্রে...

০৭. বিদুরের দেহত্যাগে সকলের বিলাপ এবং ব্যসের সান্ত্বনা দান

বিদুরে লইয়া কান্দিছেন পঞ্চজন। হেনকালে আইলেন মুনি দ্বৈপায়ন।। মুনি দেখি প্রণমিল পঞ্চ সহোদর। খুল্লতাত বলি কান্দে সবে উচ্চৈঃস্বর।। প্রবোধিয়া মুনিবর কহেন বচন। অকারণে শোক করে ধর্ম্মের নন্দন।। আপনি কি নাহি জান রাজা যুধিষ্ঠির। তোমায় বিদুরে হয় একই শরীর।। মান্ডব্য মুনির শাপে...

০৮. ব্যাসদেবের নিকট গান্ধারী প্রভৃতি কুরুনারীগণের মৃত পতিপুত্রাদি ও স্বজনগণের দর্শন কামনা

এইরূপে অন্ধেরে কহেন মুনিবর। মায়ের নিকটে যান পঞ্চ সহোদর।। গান্ধারীরে প্রণাম করেন পঞ্চজনে। আর্শীর্ব্বাদ কৈল দেবী প্রসন্ন বদনে।। কুন্তীরে প্রণাম কৈল পঞ্চ সহোদর। বসেন কুন্তীর কোলে মাদ্রীর কোঙর।। পুত্র কোলে করি কুন্তী করিল চুম্বন। প্রণাম করিল আসি যত বধুগণ।। এইমতে সর্ববজনে...

০৯. ব্যাসের আজ্ঞায় স্বর্গ হইতে কুরুক্ষেত্রে নিহত যোদ্ধাগণের আগমন ও স্বজনগণের সহিত সাক্ষাৎ

মুনি বলে অবধান গুনহ রাজন। মুনিস্থানে স্বর্গ হতে এল সর্ব্বজন।। অষ্টাদশ অক্ষৌহিনী একত্র মিলিয়া। ব্যাসের সদনে সবে মিলিল আসিয়া।। দেখিয়া সন্তুষ্টচিত্ত হৈয়া মুনিবর। কহিলেন সকলেরে ডাকিয়া সত্বর।। মনের বাসনা পূর্ণ হইল সবাকার। ইষ্ট মিত্র বন্ধু সবে দেখ আপনার।। দিব্যরথে আসিল যে...

১০. যুধিষ্ঠিররাদির হস্তিনায় প্রত্যাগমন ও তপোবনে ধৃতরাষ্ট্র, গান্ধারী, কুন্তী এবং সঞ্জয়ের যজ্ঞাগ্নিতে মৃত্যু

মুনি বলে গুন জন্মেজয় নরনাথ এইরূপে হইল সে রজনী প্রভাত।। যুধিষ্ঠির প্রতি কন ব্যাস তপোধন। হস্তিনানগরে রাজা করহ গমন।। না ভাবিহ শোক দুঃখ হৃষ্টচিত্ত হৈয়া। ভ্রাতৃসঙ্গে রাজ্যের পালন কর গিয়া।। ধৃতরাষ্ট্র কুন্তী আর গান্ধারী সঞ্জয়। সবারে বিদায় করে মুনি মহাশয়।। প্রদক্ষিণ করি সবে...