১৩.নারীপর্ব্ব

০১. বৈশস্পায়নের প্রতি জন্মেজয়ের প্রশ্ন

জন্মেজয় বলিলেন শুন মহাশয়। কুরুক্ষেত্র যুদ্ধ শুনি ঘুচিল সংশয়।। একাদশ অক্ষৌহিনী সমরে পড়িল। তিন জন মাত্র তাহে রক্ষা যে পাইল।। পরে কি হইল মুনি বলহ আমারে। আদ্যোপান্ত যত কথা জিজ্ঞাসি তোমারে।। কি করিল শুনি ধৃতরাষ্ট্র পুত্রশোকে। সান্ত্বনা করিল কহ কোন্ কোন্ লোকে।। দুর্য্যোধন...

০২. শতপুত্র নাশে ধৃতরাষ্ট্রের খেদ ও তাঁহার সান্ত্বনা

দুর্য্যোধন-মৃত্যুকথা, সঞ্জয় কহিল তথা, ধৃতরাষ্ট্র শুনিল প্রভাতে। যেন হৈল বজ্রাঘাত, আকাশের চন্দ্রপাত, কর্ণ যেন রুদ্ধ হৈল বাতে।। সকল পৃথিবীপতি, দুর্য্যোধন মহামতি, বলে ইন্দ্র না হয় সোসর। হেন পুত্র যার মরে, সে কেমনে প্রাণ ধরে, শোকেতে হইল জর জর।। পুত্রশোকে নরপতি, বিহবল পড়িল...

০৩. ধৃতরাষ্ট্রের প্রতি ব্যাসের হিতোপদেশ

বিষাদ করয়ে নরপতি পুত্রশোকে। রাজারে বেড়িয়া কান্দে যত পুরলোকে।। তবে ব্যাস কহিলেন শুন নৃপবর। গত জীব হেতু তুমি শোক কেন কর।। আর শোক না করিহ গুনহ রাজন। মন দিয়া শুন দুর্য্যোধনের কথন।। একদা গেলাম আমি ব্রাক্ষার সভায়। নারদাদি মুনিগণ আছিল তথায়।। হেনকালে পৃথিবী করিল নিবেদন।...

০৪. ধৃতরাষ্ট্র কর্ত্তৃক লৌহ-ভীম চূর্ণ করণ

সঞ্জয় রাজারে ধরি বসায় আসনে। বসিলেন পঞ্চভাই রাজ বিদ্যমানে।। সাত্যকি সহিত কৃষ্ণ বসেন আপনি। হেনকালে বলে ধৃতরাষ্ট্র নৃপমণি।। কোথা ভীম আইসহ দিব আলিঙ্গন। তুমি মম ঘুচাইলে পিন্ড প্রয়োজন।। ঊরু ভাঙ্গি মারিলেক নৃপতি দুর্য্যোধনে। এ‌কে একে সংহারিলে শতেক নন্দনে।। শুনিয়া আমার হৈল...

০৫. গান্ধারী প্রভৃতি স্ত্রীগণের যুদ্ধস্থলে গমন ও স্ব স্ব পতি পুত্রের মৃতদেহ দর্শনে খেদ

মহাভয় উপজিল দেখি রণস্থল। শকুনি গৃধিনী শিবা করে কোলাহল।। হাতে মুন্ড করিয়া নাচয়ে ভূতগণ। কুক্কুর করিছে মাংস শোণিত ভক্ষণ।। রক্তের কর্দ্দমে শীঘ্র চলিতে না পারে। শোকাকুলা নারীগণ যায় ধীরে ধীরে।। কেহ কেহ না পাইয়া পতি দরশন। ভূমিতে পড়িয়া তারা করয়ে ক্রন্দন।। ভ্রময়ে সমরস্থলে যত...

০৬. মৃত পতি পুত্রাদি দর্শনে গান্ধারী প্রভৃতি স্ত্রীগণের বিলাপ ও শ্রীকৃষ্ণের প্রতি গান্ধারীর অনুযোগ

জন্মেজয় কহিলেন শুন মহামুনি। গান্ধারী কি কহিলেন কহ তাহা শুনি।। কেমনে ধরিল প্রাণ শত পুত্রশোকে। ক্রোধ করি কোন্ কথা কহিল কৃষ্ণকে।। পূর্ণব্রক্ষ্ম অবতার দেব নারায়ণ। জানিয়া শাপিল দেবী কিসের কারণ।। এই ত আশ্চর্য্য অতি মম মনে লয়। বিস্তারিয়া সেই কথা কহ মহাশয়।। কহেন বৈশস্মায়ন...

০৭. শ্রীকৃষ্ণের প্রতি গান্ধারীর শাপ

কুরুকুল বিনাশিলা বসুদেব সুত। কহিতে অনল উঠে কি কব অচ্যুত।। পুত্রশোকে কলেবর জ্বলিছে আমার। বল দেখি হেন শোক হয়েছে কাহার।। শুন কৃষ্ণ আজি শাপ দিব হে তোমারে। তবে পুত্রশোক মোর ঘুচিবে অন্তরে।। অলঙ্ঘ্য আমার বাক্য না হবে লঙ্ঘন। জ্ঞাতিগণ হৈতে কৃষ্ণ হইনু নিধন।। পুত্রগণ শোকে আমি...

০৮. যুধিষ্ঠিরাদি কর্ত্তৃক মৃত স্বজনগণের শরীর সৎকার

কৃষ্ণের বচনে ধৃতরাষ্ট্র নরপতি। যুধিষ্ঠিরে ডাকিয়া বলিছে মহামতি।। মন দিয়া শুন পুত্র আমার বচন। কুরুক্ষেত্র যুদ্ধেতে মরিল যত জন।। রাজ রাজ্যেশ্বর রাজা কুমার রাজার। গণনা করিতে নারি কতেক হাজার।। সুহৃদ বান্ধব কার নাহি সহোদর। সবাকার প্রেতকর্ম্ম করহ সত্বর।। অগ্নি কার্য্য সবাকার...

০৯. শ্রীকৃষ্ণ, ব্যাস ও নারদের নানা উপদেশে যুধিষ্ঠিরাদির হস্তিনায় গমন

বলেন বৈশস্পায়ন শুনহ রাজন। যুধিষ্ঠিরে তখন কহেন নারায়ন।। অঙ্গীকার তথাপি না করেন রাজন। পুনশ্চ কহেন কৃষ্ণ মধুর বচন।। শুন ওহে ধর্ম্মরাজ ক্ষমা দেহ মনে। হস্তিনানগরে চল আমার বচনে।। পৃথিবী পালহ রাজা সিংহাসনে বসি। ধর্ম্মের নন্দন তুমি হবে রাজ্যবাসী।। যে দুঃখ পাইলে তুমি বেড়াইয়া...