১১.সৌপ্তিকপর্ব্ব

০১. অশ্বখামার পান্ডবনাশার্থ প্রতিজ্ঞা

জন্মেজয় বলিলেন কহ মুনিবর। কোন্ জন কি কর্ম্ম করিল অতঃপর।। মুনি বলে দ্রোণপুত্র রাজার সাক্ষাতে। মহাঅহঙ্কার করি লাগিল বলিতে। অবধান মহারাজ কৌরব ঈশ্বর এক কথা কহি আমি তোমার গোচর।। ভীষ্ম দ্রোণ কর্ণ আর শল্য আদি বীরে। সেনাপতি করিয়া পূজিলা সমাদরে। কোন কর্ম্ম তোমার করিল কোন্ জন।...

০২. অশ্বথামাকে সেনাপতির অভিষেক

হেম কলসেতে বারি লয়ে দুইজন। রাজার নিকটে যায় আনন্দিত মন।। যথায় আছয়ে রাজা তথায় চলিল। দুর্য্যোধন নিকটেতে জল আনি দিল। দেখি আনন্দিত অতি কৌরবের পতি। অভিষেক করিতে উঠেন শীগ্রগতি।। উরু ভাঙ্গি পড়িয়াছে উঠিতে না পারে। স্পর্শ করি দিল বারি অশ্বন্থামা করে।। আপনি লইয়া বারি ঢালিলেক...

০৩. অম্বথামা কর্ত্তৃক শিবের স্তব

গুন প্রভু দিগন্বর, বাঞ্চা পূর্ণ কর হয়, আমি দীন হীন অভাজন। ক্ষমা কর দোষ যত, আমি তব অনুগত। নাহি জানি ভজন পূজন।। আকাশ পাতল ভূমি, স্থাবর জঙ্গম তুমি, দশ দিক অষ্ট কুলাচল। ক্ষিতি অপ তেজঃ ব্যোম, পবন ভাস্কর সোম, তব মুত্তি বিশেষ সকল।। কি কব তোমার তত্ত্ব, তুমি রজঃ তুমি সত্ত্ব,...

০৪. অশ্বথামার শিবিরে প্রবেশ ও বৃষ্টদ্যুরাদি বধ

গিরিশ বলিল ইহা করিতে না পারি। পুরী রক্ষা করি আমি হইয়া যে দ্বারী। এ বর ছাড়িয়া মাগ যাহা লয় মন। দ্রৌণী বলে অন্য বরে নাহি প্রয়োজন। যদি কদাচিৎ এই বর নাহি দিবে। বলিদান গ্রহণ করহ দেব তবে। দিব্য অস্ত্র যুড়ি অগ্রে জ্বালিল অনল। পুড়িয়া মরিতে যায় দ্রৌণি মহাবল। বহুস্তব করিতে সে...

০৫. হর্ষ-বিষাদে দুর্য্যোধনের মৃত্যু

পড়িয়া আছিল রাজা ভুমির উপর। বাহুযুগে ভর দিয়া উঠিল সত্বর।। রিপু নাশ গুনি রাজা তুস্ট হৈল চিত্তে। পান্ডবের মুন্ড রাজা চাহিলে দেখিতে।। ধন্য মহাবীর তুমি গুরুর নন্দন। আমার পরম কার্য্য করিলে সাধন।। পঞ্চমুন্ড দেহ আমি দেখিব নয়নে। ভীমের মস্তক আমি ভাঙ্গিব চরণে।। শুনি পঞ্চমুন্ড...