২৬. কর্ণের আত্মশ্লাঘা

দুর্য্যোধন দুর্ম্মতির শুনিয়া বচন।
কহিতে লাগিল তবে বীর বৈকর্ত্তন।।
মলিন বদন কেন দেখি সব রথী।
আচার্য্যের বাক্যে বুঝি ছন্ন হৈল মতি।।
না জানহ ইতিমধ্যে আছে কর্ণবীর।
কার শক্তি মোর আগে যুদ্ধে হবে স্থির।।
কিম্বা জামদগ্ন্য রাম কিম্বা বজ্রপাণি।
কিম্বা বাসুদেব সহ আসুক ফাল্গুনি।।
বধিব সবারে আমি একা ভুজবলে।
সমুদ্র-লহরী যথা রক্ষা করে কূলে।।
ভাগ্যে যদি থাকে তবে হইবে কিরীটি।
প্রথমে বানরধ্বজ ফেলাইব কাটি।।
খণ্ড খণ্ড করি দিব শ্বেত চারি হয়।
দশমিক মম অস্ত্রে হবে অস্ত্রময়।।
বিজয় ধনুক মম বিখ্যাত সবার।
দিব্য অস্ত্র দিল মোরে রাম গুণাধার।।
পাণ্ডব কারণ সদা দুঃখী দুর্য্যোধন।
সে দুঃখ মিত্রের আজি করিব খণ্ডন।।
কাটিয়া পার্থের মুণ্ড অগ্রে দিব ডালি।
নিষ্কণ্টকে রাজ্য ভুঞ্জ নাহি শত্রু বলি।।
একেশ্বর আজি আমি করিব সমর।
সবে যাহ গাভী লয়ে হস্তিনা নগর।।
কিম্বা ‍যুদ্ধ দেখ সবে অন্তরে থাকিয়া।
সূর্য্য আচ্ছাদিব আজি বাণ বরষিয়া।।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *