১৪. নীলধ্বজ-জামাতা অগ্নির বিবরণ

শ্রীজনমেজয় বলে, শুন তপোধন।
এই আমি তোমারে করি যে নিবেদন।।
রাজার জামাতা অগ্নি হইল কেমনে।
এই কথা কৃপা করি কহিবে আপনে।।

বলেন বৈশম্পায়ন, শুন নরপতি।
এবে কহি নীলধ্বজ রাজার ভারতী।।
জনা নাম ধরে নীলধ্বজের মহিষী।
রতি জিনি রূপ তার পরমা রূপসী।।
জনা সঙ্গে নীলধ্বজ নানা কেলি করে।
দৈবযোগে গর্ভ তার হইল উদরে।।
লক্ষ্মী-শাপে সেই গর্ভে এল বসুমতী।
স্বাহা নাম হৈল তার, শুন নরপতি।।
পরমা সুন্দরী কন্যা বাড়ে দিনে দিনে।
চন্দ্রমার শোভা যেন পৌর্ণমাসী দিনে।।
কন্যা দেখি নৃপতির আনন্দ অপার।
স্বাহা বলি নাম রাজা রাখিল তাহার।।
হইল বিবাহকাল ভাবে মনে মনে।
অনুক্ষণ যুক্তি করে পাত্র মিত্র সনে।।
কারে কন্যা দান দিব, কোথা পাব বর।
কালাতীত হৈলে হবে অতি মন্দতর।।

কন্যা বলে, শুন পিতা আমার বচন।
মনুষ্যলোকেতে মম নাহি লয় মন।।
দেবপত্নী হব আমি ইথে নাহি আন।
সত্য কহিলাম পিতা তব বিদ্যমান।।
স্বাহা-বাক্যে পুছে রাজা হরিষ অন্তরে।
কাহারে বরিবে তুমি বলহ আমারে।।
কিবা ইন্দ্র চন্দ্র কিবা শমন পবন।
কুবের বরুণ অগ্নি কারে তব মন।।
শিব ব্রহ্মা বিষ্ণু আর যত দেবগণ।
কার পত্নী হবে তুমি, বলহ বচন।।
আমার অনেক ভাগ্য ইথে নাহি আন।
দেবপত্নী হবে তুমি আমার সম্মান।।

স্বাহা বলে, শুন পিতা আমার বচন।
জীবনে মরণে অগ্নি, বলে সর্ব্বজন।।
শিশুকাল হৈতে মোর অনলে ভকতি।
শুন পিতা অগ্নিপূজা কর নিতি নিতি।।
অনল আমার স্বামী, কহিনু তোমারে।
তাঁহাকে আনিয়া দেব বিবাহ আমারে।।

রাজা বলে, কোথা পাব তাঁর দরশন।
স্বাহা বলে, আসিবেন করিলে স্বরণ।।
এত বলি রাজকন্যা পূজে বৈশ্বানরে।
স্তুতি করে স্বাহাদেবী যুড়ি দুই করে।।
স্বাহার স্তবেতে বশ হৈল বৈশ্বানর।
রহিতে না পারি আসি কহেন সত্বর।।
নিজ অভিলাষ মোরে কহ গুণবতী।
কিসের কারণে মোরে পূজ নিতি নিতি।।
স্বাহা বলে, তুমি মোরে করহ গ্রহণ।
তব পত্নী হব আমি, এই নিবেদন।।
এই হেতু স্তব করি, পূজি যে তোমারে।
এই অভিলাষ, বর দেহ ত আমারে।।
এবমস্তু বলি অগ্নি সেই বর দিল।
বর পেয়ে স্বাহা মনে সম্প্রীতি পাইল।।
জানাইল পিতৃদেবে অগ্নি-আগমন।
শুনিয়া হইল রাজা আনন্দিত মন।।
যোড়হাতে বিনয় করেন নরপতি।
কন্যাদান অগ্নিদেবে করে শীঘ্রগতি।।
যোড়হাত হয়ে রাজা বলিল অগ্নিরে।
স্বাহা নামে কন্যা আমি দিলাম তোমারে।।
আপনি করিবে দেব আমার রক্ষণ।
ধন জন রাজ্য তোমা করিনু অর্পণ।।
বিপক্ষ না আসে যেন আমার নগরে।
সতত থাকিবে তুমি আমার মন্দিরে।।
তথাস্তু বলিয়া অগ্নি সেই বর দিল।
স্বাহার সহিত তার বিবাহ হইল।।
বিপক্ষ না যায় কেহ নীলধ্বজ-পুরে।
ওহে রাজা কহি শুন অনলেন ডরে।।
কন্যা দিয়া অগ্নিদেবে রাখে নরপতি।
কহিনু তোমারে আমি পূর্ব্বের ভারতী।।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *