৬.যৌন মিলন

৬.১ নর-নারীর শ্রেণীবিভাগ ও সঙ্গম

পুরুষদের শ্রেণীবিভাগ ও সঙ্গম নারী ও পুরুষের সংযুক্ত রতিক্রিয়ায় উভয়ের যে চরম উল্লাস হয় তার অধিকাংশ নির্ভর করে মন ও শরীরের ওপর। মনস্তত্ত্বের দিক দিয়ে বলা যায় নারী ও পুরুষের মন পরস্পরের দিকে যথেষ্ট আকৃষ্ট থাকলে অর্থাৎ উভয়ের ভালবাসা পরস্পরের প্রতি প্রবল হলে এই যৌন সঙ্গমের সূখ খুব উচ্চস্তরের হয়। কিন্তু দেহাংশের ওপরেও এই সুখ […]

৬.১০ সহাবাসের আগে ও পরে

সম্ভোগের আগে স্বামীর কর্তৃব্য ১। পতির কর্তব্য হলো, পত্নীকে প্রিয়তমা জ্ঞানে বা সত্যিকারের ধর্মপত্নী জ্ঞানে নিজের তৃপ্তির সঙ্গে সঙ্গে তারও দৈহিক ও মানসিক তৃপ্তি বিধান করা। নিজের কামনা পরিতৃপ্ত করাই সম্ভোগের একমাত্র লক্ষ্য হওয়া উচিত নয়। ২। কোন প্রকার বল প্রয়োগ করা আদৌ বাঞ্ছনীয় নয়। একথা মনে রাখতে হবে। ৩। চুম্বন, আলিঙ্গন, নিপীড়ন ইত্যাদি নানাভাবে […]

৬.২ আলিঙ্গন শিল্প

কামশাস্ত্রে আছে প্রকৃত যৌন মিলনের আগে কতকগুলি কাজ করা একান্ত প্রয়োজন। তার মধ্যে সর্ব প্রধান হলো আলিঙ্গন। তাই আলিঙ্গনকে একটি শিল্প হিসাবে বর্ণনা করা হয়েছে। কামশাস্ত্রবিদরা বলেন- সাধারণতঃ আট রকমের আলিঙ্গন পুরুষ ও নারী পরস্পরের প্রতি হতে পারে। এই আটভাবে নারী ও পুরুষ প্রাথমিক সুখ পায়। প্রত্যেকটি আলিঙ্গন আবার আট রকমের হয়- তাহলে মোট ৬৪ […]

৬.৩ চুম্বন শিল্প

চুম্বন একটি শিল্প নায়ক নায়িকা পরস্পরকে জড়িয়ে ধরার পরেই দু’জনের মধ্যে শুরু হয় কামক্রিয়া। এই কামক্রিয়ার মধ্যে চুম্বন, স্তন নিপীড়ন, নখাঘাত ও দংশন আছে। বাৎস্যায়ন বলেন- এসব কাম-ক্রিয়ার মধ্যে কোনটি সবার চেয়ে প্রশস্ত বা কার্যকরী তা নির্ভর করে নারী ও পুরুষ দু’জনের ইচ্ছার উপরে। যে অঙ্গটি যে সুন্দর বলে বিবেচনা করে, তেমনি সেই অঙ্গকে উপভোগ […]

৬.৪ নখাঘাত বা নখচ্ছেদ্য

নারী ও পুরুষ আলিঙ্গন ও চুম্বনের দ্বারা রতি ক্রিয়ায় যথেষ্ট উৎসাহী হয় ও তাতে অনুরাগ বৃদ্ধি হয়। এখন এই দু’টি প্রক্রিয়া ছাড়া আরও বিভিন্ন প্রক্রিয়া আছে বা রতি ক্রিয়ার আগে দুজনের মধ্যে যথেষ্ট আনন্দ ও উল্লাস সঞ্চার করতে পারে। এগুলি হলো নখাঘাত বা নখচ্ছেদ্য, দংশনচ্ছেদ্য বা দংশন ইত্যাদি। কখন নখাঘাত প্রয়োজন নখাঘাত কখন কখন প্রয়োজন […]

৬.৫ দংশন বা দংশনচ্ছেদ্য ও দেশাচার

যখন নারী পুরুষের কাম খুব চূড়ান্তস্তরে, তখন তারা শুধু নখাঘাত করেই তৃপ্ত থাকে না- সেই সঙ্গে তারা দংশনও ক’রে থাকে। স্নায়ুর উত্তেজনা খুব বেশী হলেই মানুষ দংশন করে- তা ছাড়া করে না। কপাল, অধর, ঘাড়, গলা, বুক, স্তন, নিতম্ব, উরুদ্বয় ও যোনিদেশে দংশন করতে পারে। দাঁতের গুণাবলী দাঁত দিয়ে দংশন ক’রে প্রেম চরিতার্থ করতে গেলে […]

৬.৬ প্রত্যক্ষ মিলন ও মিলনের আসন

সংবেশন বা প্রত্যক্ষ মিলন বাৎস্যায়ন বলেন, নারী ও পুরুষের পরস্পর মিলনের আনন্দ উচ্ছাস পেতে হলে, প্রথমে পরিচয় লাভ, মৈত্রী, ক্রমে আলিঙ্গন, চুম্বন, নখচ্ছেদ্য, স্তন নিপীড়ন ইত্যাদি শৃঙ্গার করে, শেষে রতিক্রিয়া আরম্ভ করবে। এই রতিক্রিয়াই চরম আনন্দ (অন্য শরীরের) দান করায় একমাত্র প্রধান বস্তু। এ না হলে কোন পুরুষ বা নারীর চরম সুখ লাভ ঘটে না। […]

৬.৭ শীৎকার ধ্বনি

সঙ্গমকালে মুখে নানারকম শব্দ নারী পুরুষের মিলনের সময় নারী থাকবে ক্রিয়াহীন্তপুরুষ নারীর বিভিন্ন অঙ্গ সংবাহন করবে-তার সঙ্গে মিলন চলবে। পূর্ণ আনন্দ নারী পেলে তার মুখ দিয়ে নানারকম ধ্বনি বা আনন্দ শব্দ বের হবে। যেমন আঃ আঃ ইঃ ইঃ ওঃ ওঃ ইত্যাদি। নারীর দেহে টিপুনীর স্থান ১। হাতে চেটো। ২। সম্পূর্ণ বাহু। ৩। পায়ের চেটো। ৪। […]

৬.৮ বিপরীত বিহার

নারী পুরুষের মিলনের সাধারণ নিয়ম হলো এই যে, নারী বিছানার উপরে চিৎ হয়ে শেঅবে-উপরে উঠে পুরুষ বিহার করবে। কিন্তু যদি পুরুষ চিৎ হ’য়ে শয়ন করে-নারী তার উপরে উঠে বিহার ক’রে থাকে, তবে তাকে বলা হয় বিপরীত বিহার। বিপরীত বিহারের কারণ ১। পুরুষের অনিচ্ছা বা সামান্য ইচ্ছা। ২। পুরুষের রতি ক্লান্তি। ৩। পুরুষ রতি অনিচ্ছা। ৪। […]

৬.৯ নারীর কাম উত্তেজনা ও তৃপ্তি

নারীর কাম উত্তেজনা নারীর কাম উত্তেজনা দ্রুত কি ভাবে বৃদ্ধি করা যায় সে বিষয়েও কামশাস্ত্রে আলোচনা করা হয়েছে। নিম্নলিখিত উপায়গুলি অবলম্বন করলে দ্রু নারীর কাম উত্তেজনা বৃদ্ধি পায়। তা হলোঃ- ১। মুখ, কপাল, গাল ইত্যাদি স্থানে ঘন ঘন চুম্বন করা ও ধীরে ধীরে ঘর্ষণ করা। ২। সঙ্গমের পূর্বে নারী দেহের বিভিন্ন স্থান স্পর্শ করলে, ধীরে […]