অনুপম সৌধ

ক’বছর আগেকার কথা, সময়টা আমার খারাপই ছিল, বলা যায়। আমার চৌদিকে কিছু ভাঙা ইট, নুড়ি, চুন বালি বস্তুত ছড়ানো ছিল… Read more অনুপম সৌধ

অযৌক্তিক

একজন ভদ্রলোক, ধারালো ছুরির মতো যার চোখ, ঘোর যুক্তিবাদী, আমাকে খানিক আপাদমস্তক দেখে নিয়ে নিরাসক্ত কণ্ঠস্বরে বললেন, এই যে আপনি… Read more অযৌক্তিক

আপন ভুবনে

কী-যে হয়, এই আমার মতোন ঘরকুনো লোকটাও একদিন বলা-কওয়া সেই ঘরবাড়ি ছেড়ে ছুড়ে হঠাৎ পালিয়ে এল এই এলাকায়, যেখানে কোথাও… Read more আপন ভুবনে

একটি তারিখের অন্তরালে

একটি বিশেষ তারিখ খসে-পড়া নক্ষত্রের মতো লুটিয়ে পড়েছিল আমার বিস্মরণের তিমিরে। অথচ সেই তারিখের অন্তঃপুরে রয়েছে যে-ঘটনা, তা সর্বক্ষণ জ্বলজ্বল… Read more একটি তারিখের অন্তরালে

ওরা দু’জন

হাওয়া আর সবুজ ঘাসের গলাগলি, মৌমাছির মুখ ডোবে ফুলের যৌবনে, শূন্য পথে কয়েকটি ঝরা পাতা, যেন বা স্মৃতির ছায়া। নবজাতকের… Read more ওরা দু’জন

কবি ভাবছেন

অনুষ্ঠানপীড়িত, বয়স্ক একজন কবি ভাবছেন,-হায়, আমাকে করছে ক্লান্ত ক্রমাগত সংগঠনগুলো। মঞ্চ থেকে মঞ্চান্তরে চার-পাঁচ ঘণ্টা বসে বসে প্রতি সন্ধ্যা ভাষণের… Read more কবি ভাবছেন

কবিতাকে

কখন যে তুমি আসো, পাশে এসে নিরিবিলি বসো, তাকাও গভীর চোখে, শুন্‌শুন্‌ করো, ব্যাকরণ অদূর সরিয়ে গান গেয়ে ওঠো, হঠাৎ… Read more কবিতাকে

কোকিলের ডাক

পাখির মতো গেয়ে ওঠে টেলিফোনে; তোমার কণ্ঠস্বর। এক নাগাড়ে অনেকদিন আকাশ গাঢ় মেঘে-ঢাকা থাকার পর যেমন রোদ ঝকঝকিয়ে ওঠে, তেম্নি… Read more কোকিলের ডাক

ঘরে-বাইরে

আয়নায় নিজের শুকনো মুখ দেখে কেমন অচেনা মনে হয়; বেশ কিছুদিন থেকে কোথাও যাই না, শুয়ে-বসে আর পায়চারি করে নিজের… Read more ঘরে-বাইরে

ছায়া

গাছের ছায়ার দিকে একজন লোক তন্ময় বিছিয়ে রাখে চোখ কিছুক্ষণ, যেন ছায়া কিছু কথা বলবে নরম স্বরগ্রামে লোকটাকে। বহু হাঁটাহাঁটি… Read more ছায়া

জনৈক স্বেচ্ছাবন্দির স্বগতোক্তি

কোথাও যাই না আজকাল, থাকি গৃহকোণে একা; খুব কি খারাপ আছি স্বেচ্ছাবন্দি হয়ে? ব্যালে নর্তকীর মতো রোদ্দুর, চাঁদিনী, বারান্দার টবের… Read more জনৈক স্বেচ্ছাবন্দির স্বগতোক্তি

তাতে কী

একদিন প্রিয় মুখ, গাছপালা, ফুল রোদ, জ্যোৎস্না, বৃষ্টিধারা, বইপত্র হঠাৎ দু’চোখ থেকে মুছে যাবে; শুনব না কারও কথা, পদধ্বনি, কোকিলের… Read more তাতে কী

তোমার আসা, না-আসার উদ্দেশে

দূরগামী পাখিদের বুক থেকে ভরসন্ধ্যা নেমে পড়তেই বুকশেলফ্‌ থেকে প্লেটোর রিপাবলিক লরেল পাতার মালা নিয়ে, রবীন্দ্রনাথের সঞ্চয়িতা যূথির স্তবক নিয়ে… Read more তোমার আসা, না-আসার উদ্দেশে

তোরঙ্গ

আমাকে একটি রঙিন তোরঙ্গে পুরে তালা লাগিয়ে দিলে তুমি। অপরিসর তোরঙ্গে কোনওমতে হাত-পা মুড়ে পড়ে ছিলাম। শ্বাস রোধ হয়ে আসছিল… Read more তোরঙ্গ

ধ্রুবপদ

বহুক্ষণ বসে আছি অন্ধকার ঘরে, ধারে কাছে কেউ নেই, এরকম আন্ধারের কথা জীবনানন্দের কবিতায় অনেক পড়েছি আর সীমাহীন রহস্যময়তা গূঢ়… Read more ধ্রুবপদ

নিঝুম কাফেতে

বহুদিন পর সেদিন হিমেল রাতে ছিলাম দু’জন নিঝুম কাফেতে বসে। কফির পেয়ালা ছিল সম্মুখে রাখা।, মুহূর্তগুলো পড়ছিল মৃদু খসে। কথোপকথনে… Read more নিঝুম কাফেতে

পাখি ও মানুষ

ব্যথিত পাখিটি তার কাছে এসে নিশ্চুপ দাঁড়ায় সমর্পিত দৃষ্টি তার। কিছু শুশ্রূষার প্রয়োজন ওর আছে ভেবে লোকটা পাখিকে আরও ঘনিষ্ঠ… Read more পাখি ও মানুষ

পারত যদি

পারত যদি সাজিয়ে দিত গোলাপ দিয়ে তোমার ঘরের শূন্যতাকে। তোমার সঙ্গে আস্তে সুস্থে বসত গিয়ে প্রবাল রঙের চুপ সিঁড়িতে গোধূলিতে।… Read more পারত যদি

পুরস্কার

শূন্য থেকে কিছু কাব্যপঙ্‌ক্তি টেনে আনার সুবাদে কয়েকটি ছোট পুরস্কার পেয়েছি আমিও কখনও কখনও স্বদেশে বিদেশে আর মালায় ভূষিত হয়েছি… Read more পুরস্কার

বেদে

একজন সুকান্ত বেদেকে প্রায় প্রতিরাতে স্বপ্নে দেখি, তার ঠোঁট কাঁপে যেন কিছু বলবার আছে, অথচ হয় না বলা কিছুতেই। এত… Read more বেদে

রূপালি মুকুট

এইমাত্র লোকটা নিঃশব্দে ঢোকে তার খুপরিতে। এককোণে মেঝেতে বিছানা পাতা; মলিন চাঁদর, বালিশ ওয়াড়ছুট, আহত পশুর মতো যেন গোঙাচ্ছে, ঘরের… Read more রূপালি মুকুট

লক্ষ্মীবাজারের রৌদ্রময় অন্ধকারে

আমার চারপাশে ছড়ানো ছিটানো অনেক পোড়া, আধপোড়া, ছেঁড়াখোড়া, ছাই-হয়ে-যাওয়া বইপত্তর, খাতা, কলম, ছিন্নভিন্ন জামাকাপড়, বিছানা, কয়েকটি স্পঞ্জের স্যান্ডেল এক পাটি… Read more লক্ষ্মীবাজারের রৌদ্রময় অন্ধকারে

সাধ

আজীবন শহরের বাশিন্দা সে। ধুলোবালি, ইট পাথর, হুল্লোড় তার ভালোই লেগেছে এতকাল, নালিশে হয়নি মন ধূমায়িত। অথচ এখন কিছুদিন থেকে… Read more সাধ