০৫.আরণ্যক – পঞ্চম পরিচ্ছেদ

পঞ্চম পরিচ্ছেদ ১ খুব জ্যোৎস্না, তেমনি হাড়কাঁপানো শীত। পৌষ মাসের শেষ। সদর কাছারি হইতে লবটুলিয়ার ডিহি কাছারিতে তদারক করিতে গিয়াছি।… Read more ০৫.আরণ্যক – পঞ্চম পরিচ্ছেদ

০৭.আরণ্যক – সপ্তম পরিচ্ছেদ

সপ্তম পরিচ্ছেদ দেশের জন্য মন-কেমন-করা একটি অতি চমৎকার অনুভূতি। যারা চিরকাল এক জায়গায় কাটায়, স্বগ্রাম বা তাহার নিকটবর্তী স্থান ছাড়িয়া… Read more ০৭.আরণ্যক – সপ্তম পরিচ্ছেদ

১৪.আরণ্যক – চতুর্দশ পরিচ্ছেদ

চতুর্দশ পরিচ্ছেদ ১ কয়েক মাস পরে। ফাল্গুন মাসের প্রথম। লবটুলিয়া হইতে কাছারি ফিরিতেছি, জঙ্গলের মধ্যে কুণ্ডীর ধারে বাংলা কথাবার্তায় ও… Read more ১৪.আরণ্যক – চতুর্দশ পরিচ্ছেদ

১৬.আরণ্যক – ষোড়শ পরিচ্ছেদ

ষোড়শ পরিচ্ছেদ ১ যুগলপ্রসাদকে একদিন বলিলাম- চল, নতুন গাছপালার সন্ধান করে আসি মহালিখারূপের পাহাড়ে। যুগলপ্রসাদ সোৎসাহে বলিল- একরকম লতানে গাছ… Read more ১৬.আরণ্যক – ষোড়শ পরিচ্ছেদ

১৭.আরণ্যক – সপ্তদশ পরিচ্ছেদ

সপ্তদশ পরিচ্ছেদ ১ সন্ধ্যার পরে লবটুলিয়ার নূতন বস্তিগুলি দেখিতে বেশ লাগে। কুয়াশা হইয়াছে বলিয়া জ্যোৎস্না একটু অস্পষ্ট, বিস্তীর্ণ প্রান্তরব্যাপী কৃষিক্ষেত্র,… Read more ১৭.আরণ্যক – সপ্তদশ পরিচ্ছেদ

১৮.আরণ্যক – অষ্টাদশ পরিচ্ছেদ (সমাপ্ত)

অষ্টাদশ পরিচ্ছেদ ১ এখান হইতে চলিয়া যাইবার সময় আসিয়াছে। একবার ভানুমতীর সঙ্গে দেখা করিবার ইচ্ছা প্রবল হইল। ধন্‌ঝরি শৈলমালা একটি… Read more ১৮.আরণ্যক – অষ্টাদশ পরিচ্ছেদ (সমাপ্ত)