সসের ব্যবহারে স্বাদের ভিন্নতা

ভোজনরসিকেরা ঈদের মাংসের স্বাদে চান ভিন্নতা। মাংসে সসের ব্যবহার খাবারের স্বাদে ভিন্নতা এনে দেয়—এমনটা বললেন রন্ধনশিল্পী সিতারা ফেরদৌস।
তিনি বলেন, ‘সাদাসিধা মাংস ভুনা তো আমরা নিত্যই খাই। ঈদে যেহেতু মাংস পর্যাপ্ত থাকে, তাই মাংস দিয়ে বিভিন্ন ধরনের খাবার তৈরি করা যায়। একই রকম মাংসে ভিন্ন ভিন্ন সসের ব্যবহারে এর স্বাদে চলে আসে ভিন্নতা। আর এই সস কেবল রান্না করা খাবারের সঙ্গেই নয়, হালকা সেঁকে, ঝলসে আবার কখনো রান্নার সময় ব্যবহার করে খাওয়া যায়।’
 ভিনেগার মাংস সেদ্ধ করতে এবং খাবারের স্বাদ বাড়াতে সাহায্য করে।
 অয়েস্টার সসও খাবারের স্বাদ বাড়ায়। খাবার রান্নার সময় এই সসের ব্যবহার হয়।
 ফিশ সস নাম হলেও মাংসের স্বাদ বাড়াতে ফিশ সসের জুড়ি নেই।
 বারবিকিউ সস বারবিকিউ রান্নাতে ব্যবহূত হয়।
 টার্টার সস কেনা ছাড়াও ঘরে বানিয়ে নেওয়া যায়। মেয়োনিজ, পেঁয়াজ মিহি কুচি, সবজি মিহি কুচি, ধনেপাতা কুচি একসঙ্গে মেখে কিছুক্ষণ রেখে দিলে মজাদার টার্টার সস তৈরি হয়ে যায়। রান্না মাংসের সঙ্গে এই সস খুব চলে।
 হলান্ডেইজ সস কিনতে পাওয়া যায়, যা সেদ্ধ বা ঝলসানো মাংসের সঙ্গে খেতে ভালো লাগে। ঘরে বসে তৈরি করতে চাইলে মাখন, লেবুর রস, সিরকা, ডিমের কুসুম আর লবণ একসঙ্গে একটা পাত্রে হালকা সেদ্ধ করতে হয়। আধা সেদ্ধ করতে একটা পাত্রে গরম পানি দিয়ে অল্প করে তাপ প্রয়োগ করতে হয়। এভাবেই তৈরি করা যায় এই সস।
 হোয়াইট সসও মাংসের স্বাদ বাড়িয়ে দেয় বহুগুণ। এটি তৈরির জন্য মাখন, ময়দা, দুধ, লবণ, গোলমরিচ গুঁড়া, সিরকা সব উপাদান একসঙ্গে মেখে আধা সেদ্ধ করতে হয়।
 পিনাট বাটার সসও মাংস ভুনাতে ব্যবহার করা যায়।
 টমেটো সস বা ক্যাচাপ দিয়েও মাংস ভুনা করলে মাংসের স্বাদ বাড়ে।
 সয়াসসের ব্যবহার হয় মাংস রান্না করতে। তবে সয়াসসের রঙের ভিন্নতা রয়েছে। কালো এবং একটু হালকা রঙের সয়াসসও রয়েছে। যাঁরা খাবারের রঙে উজ্জ্বল ভাব আনতে চান, তাঁরা ব্যবহার করতে পারেন হালকা রঙের সস।
 চিলি সসেরও রকমফের রয়েছে। রেড চিলি আর গ্রিন চিলি সস। যাঁরা ঝাল খেতে পছন্দ করেন, তাঁদের জন্য চিলি সস ভালো। তবে এখানেও আছে রঙের ফারাক।
 মাংসের স্বাদে টক ভাব আনতে চাইলে তেঁতুলের সস ব্যবহার করতে পারেন।
বাজার ঘুরে দেখা যায়, সুপার স্টোরগুলোতে মসলার সঙ্গে বিভিন্ন ধরনের সসের সমারোহও বেশ। জেনে নিন এসবের দাম।
চিলি সসের দাম পড়বে ৯০-১১০ টাকা, বারবিকিউ সসের দাম ভেদে ২৮০-৩৫০ টাকা, ফিশ সস ১০০ টাকা, অয়েস্টার সস ১৬৫-১৭৫ টাকা, পিনাট বাটার সস ১৩৫-২২০ টাকা, টমেটো ক্যাচাপ অথবা সসের দাম পড়বে ৬০-১৫০ টাকা, রসুনের সস ১৪৫ টাকা, ভিনেগার ৭০-১৩৫ টাকা, সয়াসস ৮০-১৫০ টাকা, টার্টার সস ২৫০-৩৩৫ টাকা।
গুলশানের ডিসিসি মার্কেট, নিউমার্কেট, সুপার স্টোর আর বড় বড় ডিপার্টমেন্টাল স্টোর থেকে কিনতে পারবেন এসব সস।

শারমিন নাহার
সূত্র: দৈনিক প্রথম আলো, নভেম্বর ১৬, ২০১০

2 thoughts on “সসের ব্যবহারে স্বাদের ভিন্নতা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *