মাছ, মাংস, ডিম ভালো রাখার উপায়

শরীর-স্বাস্থ্য ভালো রাখার জন্য আমিষ একটি উল্লেখযোগ্য খাদ্য। তাই আমিষের উপাদানগুলো কীভাবে ভালো রাখতে হবে সে সম্পর্কে ধারণা থাকা উচিত। নিচে মাছ, মাংস ডিম ভালো রাখার কিছু উপায় দেয়া হলো

মাছ

০০ মাছ ভাজা বা রান্নার আগে লেবুর রস মাখিয়ে নিন। মাছ ভেঙে যাবে না, মাছের গন্ধও চলে যাবে।

০০ মাছের আঁশটে গন্ধ দূর করতে পানিতে লবণ ও আদা মিশিয়ে জ্যান্ত মাছ রাখুন।

০০ বাসনপত্র থেকে মাছের গন্ধ কমানোর জন্য পানির মধ্যে ব্যবহার করা চা-পাতা দিয়ে ওই পানিতে কিছুক্ষণ বাসন ডুবিয়ে রাখুন। তারপর বাসন ধুয়ে ফেলুন।

০০ সুপ, গ্রেভি বা স্টু থেকে অতিরিক্ত ফ্যাট রিমুভ করতে হলে কতকগুলো আইস কিউব মিশিয়ে দিন।

০০ মাছের ফিলে ফ্রিজে রাখার সময় বড় কন্টেনারে স্টোর করে রাখুন। খুব বেশি চেপে চেপে রাখবেন না। মাছের ফিলে মোটা হলে কাঁটা চামচ দিয়ে সামান্য ফুটো করে দিতে পারেন।

০০ প্রসেসড বা ক্যানড ফিশ কেনার পর নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে রান্না করার চেষ্টা করুন। আর মাছটা সব সময় ভালো জায়গা থেকে কেনার চেষ্টা করুন।

ডিম

০০ ঠাণ্ডা জায়গায় ডিম স্টোর করুন। ফ্রিজে রাখার আগে ডিম কখনও ধুবেন না। কারণ ডিমের বহিরাংশে এক ধরনের প্রোটেক্টিভ লেয়ার থাকে, যা ডিম ভালো রাখে।

০০ কড়া বা তীব্র গন্ধযুক্ত খাবারের সাথে ডিম স্টোর করবেন না।

০০ ডিমের সাদা অংশ ফুটানোর সময় লবণ মিশান এক চিমটি। এতে সহজে ফেনা ফেনা ভাব তৈরি হবে। ফোটানোর পর সাদা অংশ ঘন রাখতে চা-চামচের আট ভাগের এক ভাগ ক্রিম মিশান। ডিমের সাদা অংশ বেশি হয়ে গেলে টাইট ফিটেড কন্টেনারে স্টোর করুন। ৩-৪ দিন ভালো থাকবে।

০০ অনেক সময় ডিমের একটা দিক ফেটে গেলে সিদ্ধ করা যায় না। এ ক্ষেত্রে ডিমটা ফেলে না দিয়ে আরেকটা দিক অল্প ফাটিয়ে ডিম সিদ্ধ করুন।

০০ ডিম সিদ্ধ করার সময় কয়েকটা আলুও একসঙ্গে সিদ্ধ করে নিন। সবজি বারবার আলাদা করে সিদ্ধ করতে হলে গ্যাসের খরচ বেড়ে যাবে। ডিম সিদ্ধ করা পানি ফেলে না দিয়ে বাসনপত্র পরিষ্কার করার জন্য ব্যবহার করুন।

০০ ডিমের পোচ ভালো করে বানাতে হলে ফুটন্ত পানিতে ১ চামচ লেবুর রস বা ভিনেগার মিশিয়ে ডিমে মিশান।

০০ ডিমের কুসুম স্টোর করতে চাইলে ১ টেবিল চামচ ঠাণ্ডা পানি মিশান। কুসুমের ময়েশ্চার বজায় থাকবে।

০০ সহজে ডিমের খোসা ছাড়াতে সিদ্ধ করার সময় জলের সাথে বিট লবণ মিশান।

০০ ডিম সিদ্ধ করার আগে ফ্রিজ থেকে বের করে নিন। রুম টেম্পারেচারে এলে ফুটন্ত পানির মধ্যে ডিম ছেড়ে দিন, নইলে ডিম ফেটে যেতে পারে।

মাংস

০০ মাংস রান্না করার আগে ফ্যাট জাতীয় অংশ রিমুভ করে নিন। মাংসের অতিরিক্ত চর্বি রান্নায় তেলাভাব তৈরি করবে না।

০০ ক্যানড মাটন রান্না করার আগে ১০ মিনিট অবশ্যই ফুটিয়ে নিন। সহজে মাংস সিদ্ধ করার জন্য রান্না করার কয়েক ঘণ্টা আগে পেঁপে দিয়ে ম্যারিনেট করে রাখুন।

০০ মাংস পরিষ্কার করে ধুয়ে জিপ লক ব্যাগে ভরে ফ্রিজে রাখুন। অনেকদিন ভালো থাকবে। রান্না করার বেশ কিছুক্ষণ আগে ফ্রিজ থেকে মাংস বের করে রাখুন।

সূত্র: দৈনিক ইত্তেফাক, জুন ০১, ২০১০

2 thoughts on “মাছ, মাংস, ডিম ভালো রাখার উপায়

  1. মাছ

    ০০ মাছ ভাজা বা রান্নার আগে লেবুর রস মাখিয়ে নিন। মাছ ভেঙে যাবে না, মাছের গন্ধও চলে যাবে।.

    ০০ মাছের আঁশটে গন্ধ দূর করতে পানিতে লবণ ও আদা মিশিয়ে জ্যান্ত মাছ রাখুন।.

    ০০ বাসনপত্র থেকে মাছের গন্ধ কমানোর জন্য পানির মধ্যে ব্যবহার করা চা-পাতা দিয়ে ওই পানিতে কিছুক্ষণ বাসন ডুবিয়ে রাখুন। তারপর বাসন ধুয়ে ফেলুন।.

    ০০ সুপ, গ্রেভি বা স্টু থেকে অতিরিক্ত ফ্যাট রিমুভ করতে হলে কতকগুলো আইস কিউব মিশিয়ে দিন।.

    ০০ মাছের ফিলে ফ্রিজে রাখার সময় বড় কন্টেনারে স্টোর করে রাখুন। খুব বেশি চেপে চেপে রাখবেন না। মাছের ফিলে মোটা হলে কাঁটা চামচ দিয়ে সামান্য ফুটো করে দিতে পারেন।.

    ০০ প্রসেসড বা ক্যানড ফিশ কেনার পর নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে রান্না করার চেষ্টা করুন। আর মাছটা সব সময় ভালো জায়গা থেকে কেনার চেষ্টা করুন।.

    ডিম

    – See more at: http://www.ebanglarecipe.com/2036#sthash.jtc6XQEG.dpuf.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *