দুর্গন্ধ হবে না ঘরে

হাজারো ব্যস্ততার ভিড়েও প্রযুক্তির বদৌলতে আমাদের কাজ হয়ে যাচ্ছে সহজতর। খাবার রান্না থেকে পরিবেশন করার জন্য রয়েছে অত্যাধুনিক জিনিসপত্র; রেফ্রিজারেটর, ওভেন, রাইস কুকার, ব্লেন্ডার ইত্যাদি। যা আমাদের জীবনযাত্রাকে সহজ করে তুলেছে। এসব ব্যবহারে অজ্ঞতার কারণে অনেক সময় খাবার দুর্গন্ধ হয়ে যায় এবং এসব জিনিস থেকে দুর্গন্ধ বের হয়ে অস্বস্তিকর পরিস্থিতির সৃষ্টি হতে পারে। এমনকি রান্নাঘর থেকেও মাঝেমধ্যে দুর্গন্ধ বের হয়। রান্নাঘরসহ এসব নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্রে দুর্গন্ধ হওয়ার কারণ এবং এ থেকে পরিত্রাণের উপায় সম্পর্কে বলছিলেন গার্হস্থ্য অর্থনীতি কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ ফিরোজা সুলতানা।

জেনে নিন
১. রেফ্রিজারেটরে বাটা মসলা ভালোমতো না ঢেকে রাখলে ভেতরে গন্ধ হয়ে যেতে পারে।
২. যেকোনো খাবার রেফ্রিজারেটরে রাখলে প্লাস্টিকের বাটিতে ঢাকনা দিয়ে রাখতে হবে।
৩. রেফ্রিজারেটর অবশ্যই নির্দিষ্ট তাপমাত্রায় রেখে দিতে হবে, যাতে খাবার নষ্ট কিংবা গন্ধ হয়ে না যায়।
৪. তরিতরকারি, সবজি এসব অনেক দিন সবজির বাক্সে রাখলে গন্ধ হয়ে যায়। তাই এক দিনের বেশি কোনো খাবার রেফ্রিজারেটরে রাখা যাবে না।
৫. রেফ্রিজারেটরে রাখা খাবার দ্রুত নষ্ট হয়ে যেতে পারে, যদি প্রয়োজনের চেয়ে বেশিবার দরজা খোলা কিংবা বন্ধ করা হয়।
৬. ওভেনে খাবার গরম করার সময় অবশ্যই ঢাকনাসহ বাটি ব্যবহার করতে হবে।
৭. খাবার গরম করার পর কিছুক্ষণ ওভেনের দরজা খুলে বাতাস ঢুকতে দিতে হবে।
৮. ওভেনের ভেতরে যদি গন্ধ হয়ে যায়, মাঝেমধ্যে তরল ডিটারজেন্ট, ভিমবার, কিংবা সাবান মেখে পরিষ্কার কাপড় বা ছোট ডাস্টার দিয়ে সাফ করতে হবে।
৯. রান্নাঘর গন্ধ হওয়ার কারণ প্রথমে বের করতে হবে। সমস্যা বুঝে এর সমাধান করতে হবে। অনেক সময় রান্নাঘরে পোকামাকড় মরে থাকে। মাছের আঁশের গন্ধ, তরিতরকারির ময়লা ঠিকমতো পরিষ্কার না করা—এসব কারণে রান্নাঘর থেকে দুর্গন্ধ আসতে পারে।
১০. রান্নাঘরে তরিতরকারি কিংবা খাবারের ময়লা নির্দিষ্ট ঝুড়িতে রাখতে হবে। প্রতিদিন ময়লার ঝুড়ি পরিষ্কার করতে হবে।
১১. রান্নাঘরের যে সিংক রয়েছে তাতে এঁটো থালাবাসন খাবারের পর ধুয়ে ফেলতে হবে। মাছ, মাংস কাটার পর সাবান দিয়ে সিংক পরিষ্কার করে রাখতে হবে।
১২. তরিতরকারি, মাছ, মাংস, ফলমূলের খোসা—এসব কাটার পর ময়লা রান্নাঘরের মেঝেতে ফেলে রাখলে পচে গন্ধ বের হতে পারে। সে জন্য ময়লার ঝুড়িতে ফেলতে হবে।
১৩. রান্নার পরপর অবশ্যই চুলার ওপর, চুলার আশপাশ সাবান বা ডিটারজেন্ট পাউডার দিয়ে পরিষ্কার করতে হবে।
১৪. রান্নাঘর টাইলস, মোজাইক, সিমেন্ট যেটারই তৈরি হোক না কেন, কয়েক দিন পরপর সাবান বা ডিটারজেন্ট দিয়ে ধুয়ে পরিষ্কার রাখতে হবে।
১৫. ওভেনে খাবার গরম করার পর শুকনো পরিষ্কার নরম কাপড় দিয়ে মুছে ফেলতে হবে।
১৬. ওভেনের ভেতরে যে গ্রিল রয়েছে সেগুলো মাঝেমধ্যে বের করে শুকনো নরম পরিষ্কার কাপড়, ছোট তোয়ালে বা নরম ডাস্টার দিয়ে পরিষ্কার করে মুছে রাখতে হবে।
১৭. রাইস কুকারে পোলাও, খিচুড়ি—এসব রান্নার পর তেলচিটচিটে হয়ে থাকে। ফলে গন্ধ হয়ে যেতে পারে। এ জন্য মাঝেমধ্যেই সাবান, পানি কিংবা ডিটারজেন্ট পাউডার দিয়ে পরিষ্কার করতে হবে। ভাত রান্না করার পরপরই ধুয়ে ফেলতে হবে রাইস কুকার।
১৮. শরবত করার জন্য যেসব জুসার, ব্লেন্ডার ব্যবহার করা হয়, সেগুলো ব্যবহারের পরপরই সাবান দিয়ে ধুয়ে পরিষ্কার করে বাতাসে শুকিয়ে রাখতে হবে। না হলে মরিচা পড়ে নষ্ট হয়ে যেতে পারে।

যা করতে হবে
১. রেফ্রিজারেটরের গন্ধ দূর করার জন্য লেবু গোল করে বা পাতলা করে কেটে রেখে দেওয়া যেতে পারে।
২. মাসে অন্তত একবার রেফ্রিজারেটর পরিষ্কার করতে হবে।
৩. রান্নাঘর বদ্ধ অবস্থায় রাখলে গন্ধ আসতে পারে। মসলা, থালাবাসন থেকে এবং পানি পড়ে সেটা জমে দুর্গন্ধ হয়ে যায়। এ জন্য রান্নাঘরের জানালা-দরজা খুলে বাতাস যাওয়ার ব্যবস্থা করতে হবে।

মডেল: তুলি
সূত্র: দৈনিক প্রথম আলো, জুলাই ২০, ২০১০

4 thoughts on “দুর্গন্ধ হবে না ঘরে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *