০০৮. সূরা আনফাল

সূরা আন্‌ফাল বা যুদ্ধের লুটের মাল - ৮
আয়াত ৭৫, রুকু ১০, মাদানী
[দয়াময়, পরম করুণাময় আল্লাহ্‌র নামে]
ভূমিকা : পূর্বের সূরাগুলিতে দেখানো হয়েছে কিভাবে কোরানের শিক্ষার ধাপে ধাপে ক্রমবিকাশ ঘটেছে। প্রথম সাতটি সূরা কোরান শরীফের প্রায় এক তৃতীয়াংশ। এই অংশে দেখানো হয়েছে মানুষের ধর্মীয় ইতিহাস ও কিভাবে তার ধাপে ধাপে ক্রমবিকাশ ঘটেছে, কিভাবে রাসূলের (সাঃ) প্রভাবে এক নূতন সম্প্রদায় বা উম্মতের আবির্ভাব ঘটেছে। এই সূরাতে এই নূতন সম্প্রদায়ের ক্রমবিকাশের আলোচনা করা হয়েছে। আলোচনা করা হয়েছে তাদের সমষ্টিগত অগ্রগতির বিভিন্ন ধাপ।
এই অধ্যায়ে বদরের যুদ্ধের অভিজ্ঞতা থেকে জীবনের বৃহত্তর ক্ষেত্রে উপদেশ গ্রহণ করতে বলা হয়েছে। এগুলি হচ্ছে : (১) যুদ্ধ ক্ষেত্রে প্রাপ্ত গণিমতের বা লুটের মাল, (২) যুদ্ধ ক্ষেত্রে বীর সৈনিকের যে সব গুণাবলীর প্রয়োজন, (৩) বাধা বিপত্তির বিরুদ্ধে জয় লাভ করা, (৪) যুদ্ধ জয়ের মূহুর্তে দয়া ও সহানুভূতি প্রদর্শন নিজের আত্ম উন্নতির জন্য ও অন্যের জন্য প্রয়োজন।
যুদ্ধের প্রধান উদ্দেশ্য গণিমতের মালের লোভ হওয়া উচিত নয়। গণিমতের মাল হচ্ছে যুদ্ধ জয়ের এক বিশেষ সুবিধা, যা অপ্রত্যাশিতভাবে পাওয়া, যা আমাদের যুদ্ধ জয়ের কোনও উদ্দেশ্য হতে পারে না। দ্বিতীয়তঃ কোনও সৈনিকের বা সেনাদলের জন্য গণিমতের মাল কোনও ন্যায় সঙ্গত অধিকারের বস্তু হতে পারে না। জেহাদ বা ধর্মযুদ্ধ হচ্ছে আল্লাহ্‌র পক্ষে যুদ্ধ, এই যুদ্ধ জয়ে যা লাভ সবই প্রাপ্য আল্লাহ্‌র। তৃতীয়তঃ গণিমতের মালের সুষ্ঠ বণ্টনের সুনির্দিষ্ট নীতিমালার প্রয়োজন, যেনো মানুষের স্বার্থপরতা ও লোভ লালসা নির্দিষ্ট সীমা অতিক্রম করতে না পারে। গণিমতের মালের এক পঞ্চমাংশ ইমাম বা ধর্মীয় নেতার প্রাপ্য। তিনি তা নিজস্ব ক্ষমতা অনুযায়ী, নিজ প্রয়োজনে বা গরীব, দুস্থ, বিপদগ্রস্থ, এতিম ও বিধবা নারীদের মধ্যে বিতরণ করতে পারেন [৮ : ৪১]। অবশিষ্ট চার পঞ্চমাংশ বিতরণ করতে হবে রাসূল যেভাবে করতেন তার অনুসরণে। রাসূল গণিমতের মাল শুধুমাত্র যারা যুদ্ধে সক্রিয় অংশগ্রহণ করতো তাদের মধ্যেই বিতরণ করতেন তা নয়; যারা এই দুঃসাহসিক অভিযানে সক্রিয় অংশগ্রহণ না করলেও বিভিন্ন ভাবে সহযোগীতার হস্ত প্রসারিত করেছে, স্ব-স্ব কর্তব্য ও দায়িত্ব নিষ্ঠার সাথে পালন করেছে তাদেরও যুদ্ধে লব্ধ মালের অংশ দেওয়া হতো, চতুর্থতঃ নিজেদের মধ্যে কোন বিবাদ বা বিসংবাদ নয় - কারণ তা সম্প্রদায়ের মধ্যে শান্তি ও শৃঙ্খলা বিনষ্ট করে।
সেনাবাহিনীর শৃঙ্খলার উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত হচ্ছে বদরের যুদ্ধ। আকাশ ছোঁয়া প্রতিবন্ধকতার বিরুদ্ধে সুশৃঙ্খল সেনাবাহিনীর উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত হচ্ছে বদরের যুদ্ধ। যারা মহত্বর কারণের জন্য যুদ্ধ করে, আল্লাহ্‌ স্বয়ং তাদের সাহায্য করেন, তাদের জয় সুনিশ্চিত। যুদ্ধ বন্দীদের সম্পর্কে নির্দেশ দান করা হয়েছে। মুসলিম সম্প্রদায়ের সংহতির নির্দেশ আছে এই সূরাতে।
বদরের যুদ্ধ সংঘটিত হয় দ্বিতীয় হিজরীর রমজান মাসের ১৭ তারিখ শুক্রবারে। এই সূরা, বদরের যুদ্ধের অল্প কিছু পরে নাজেল হয়। যুদ্ধের সংক্ষিপ্ত বিবরণ দেওয়া হয়েছে সূরা [৩ : ১৩] আয়াতে এবং টীকা ৩৫২।
সারসংক্ষেপ : সমস্ত গণিমতের মাল বিতরণের ভার আল্লাহ্‌র নির্দেশ অনুসারে আল্লাহ্‌র রাসূলের উপরে। বিশ্বাসী মোমেন বান্দারা প্রফুল্ল চিত্তে রাসূলের হুকুম মান্য করবে। যুদ্ধ জয় ও জয়ের পুরস্কার আল্লাহ্‌র নিকট থেকে পাওয়া, বদরের যুদ্ধ এই কথাই প্রমাণ করে [৮ ১-১৯]।
আনুগত্য, শৃঙ্খলা, উৎসাহ উদ্দীপনা, আল্লাহ্‌র প্রতি বিশ্বাস ও কৃতজ্ঞতা হচ্ছে সাফল্যের চাবিকাঠি ও পাপ থেকে আত্মরক্ষার উপায়। পাপ কাজ ক্রমান্বয়ে তার গতি ত্বরান্বিত করে, ফলে পাপের বোঝা একদিন পাপীকে ধ্বংস করে দেয় [৮ : ২০-৩৭]।
বদরের যুদ্ধ ছিল আল্লাহ্‌র পরীক্ষা, এই পরীক্ষা ছিল চারিত্রিক গুণাবলী ও শৌর্য-বীর্যের। বদরের যুদ্ধ এ কথাই প্রমাণ করে যে, চারিত্রিক গুণাবলী ও শৌর্য-বীর্য যে কোনও বাঁধাকে অতিক্রম করতে সক্ষম। আল্লাহ্‌র প্রতি দৃঢ় বিশ্বাস, সাহস, অমিত তেজ, সঠিক প্রস্তুতি ও সম্পদের সঠিক ব্যবহার বিপদকে অতিক্রম করতে পারে, কারণ আল্লাহ্‌র সাহায্য তাদের জন্যই [৮ : ৩৮-৬৪]।
সত্য প্রতিষ্ঠার জন্য আল্লাহ্‌র রাস্তায় যে যুদ্ধ করে, আল্লাহ্‌ তাদের সাহায্য করেন। এ সব সত্যের সৈনিকেরা দশ গুণ বাঁধাকেও অতিক্রম করতে সক্ষম। স্মরণ রাখতে হবে যে, জয়ের মূহুর্তে ক্ষমা ও দয়া প্রদর্শন উত্তম [৮ : ৬৫-৭৫]।

008.001

আপনার কাছে জিজ্ঞেস করে, গনীমতের হুকুম। বলে দিন, গণীমতের মাল হল আল্লাহর এবং রসূলের। অতএব, তোমরা আল্লাহকে ভয় কর এবং নিজেদের অবস্থা সংশোধন করে নাও। আর আল্লাহ এবং তাঁর রসূলের হুকুম মান্য কর, যদি ঈমানদার হয়ে থাক। They ask you (O Muhammad SAW) about the spoils of war....

008.002

যারা ঈমানদার, তারা এমন যে, যখন আল্লাহর নাম নেয়া হয় তখন ভীত হয়ে পড়ে তাদের অন্তর। আর যখন তাদের সামনে পাঠ করা হয় কালাম, তখন তাদের ঈমান বেড়ে যায় এবং তারা স্বীয় পরওয়ার দেগারের প্রতি ভরসা পোষণ করে। The believers are only those who, when Allâh is mentioned, feel a fear in...

008.003

সে সমস্ত লোক যারা নামায প্রতিষ্ঠা করে এবং আমি তাদেরকে যে রুযী দিয়েছি তা থেকে ব্যয় করে। Who perform As-Salât (Iqâmat­as­Salât) and spend out of that We have provided them. الَّذِينَ يُقِيمُونَ الصَّلاَةَ وَمِمَّا رَزَقْنَاهُمْ يُنفِقُونَ Allatheena yuqeemoona...

008.004

তারাই হল সত্যিকার ঈমানদার! তাদের জন্য রয়েছে স্বীয় পরওয়ারদেগারের নিকট মর্যাদা, ক্ষমা এবং সম্মানজনক রুযী। It is they who are the believers in truth. For them are grades of dignity with their Lord, and Forgiveness and a generous provision (Paradise). أُوْلَـئِكَ هُمُ...

008.005

যেমন করে তোমাকে তোমার পরওয়ারদেগার ঘর থেকে বের করেছেন ন্যায় ও সৎকাজের জন্য, অথচ ঈমানদারদের একটি দল (তাতে) সম্মত ছিল না। As your Lord caused you (O Muhammad SAW) to go out from your home with the truth, and verily, a party among the believers disliked it; كَمَا...

008.006

তারা তোমার সাথে বিবাদ করছিল সত্য ও ন্যায় বিষয়ে, তা প্রকাশিত হবার পর; তারা যেন মৃত্যুর দিকে ধাবিত হচ্ছে দেখতে দেখতে। Disputing with you concerning the truth after it was made manifest, as if they were being driven to death, while they were looking (at it)....

008.007

আর যখন আল্লাহ দু’টি দলের একটির ব্যাপারে তোমাদের সাথে ওয়াদা করেছিলেন যে, সেটি তোমাদের হস্তগত হবে, আর তোমরা কামনা করছিলে যাতে কোন রকম কন্টক নেই, তাই তোমাদের ভাগে আসুক; অথচ আল্লাহ চাইতেন সত্যকে স্বীয় কালামের মাধ্যমে সত্যে পরিণত করতে এবং কাফেরদের মূল কর্তন করে দিতে,...

008.008

যাতে করে সত্যকে সত্য এবং মিথ্যাকে মিথ্যা প্রতিপন্ন করে দেন, যদিও পাপীরা অসন্তুষ্ট হয়। That He might cause the truth to triumph and bring falsehood to nothing, even though the Mujrimûn (disbelievers, polytheists, sinners, criminals, etc.) hate it. لِيُحِقَّ الْحَقَّ...

008.009

তোমরা যখন ফরিয়াদ করতে আরম্ভ করেছিলে স্বীয় পরওয়ারদেগারের নিকট, তখন তিনি তোমাদের ফরিয়াদের মঞ্জুরী দান করলেন যে, আমি তোমাদিগকে সাহায্য করব ধারাবহিকভাবে আগত হাজার ফেরেশতার মাধ্যমে। (Remember) when you sought help of your Lord and He answered you (saying): ”I will help...

008.010

আর আল্লাহ তো শুধু সুসংবাদ দান করলেন যাতে তোমাদের মন আশ্বস্ত হতে পারে। আর সাহায্য আল্লাহর পক্ষ থেকে ছাড়া অন্য কারো পক্ষ থেকে হতে পারে না। নিঃসন্দেহে আল্লাহ মহাশক্তির অধিকারী হেকমত ওয়ালা। Allâh made it only as glad tidings, and that your hearts be at rest therewith....

008.011

যখন তিনি আরোপ করেন তোমাদের উপর তন্দ্রাচ্ছন্ন তা নিজের পক্ষ থেকে তোমাদের প্রশান্তির জন্য এবং তোমাদের উপর আকাশ থেকে পানি অবতরণ করেন, যাতে তোমাদিগকে পবিত্র করে দেন এবং যাতে তোমাদের থেকে অপসারিত করে দেন শয়তানের অপবিত্রতা। আর যাতে করে সুরক্ষিত করে দিতে পারেন তোমাদের...

008.012

যখন নির্দেশ দান করেন ফেরেশতাদিগকে তোমাদের পরওয়ারদেগার যে, আমি সাথে রয়েছি তোমাদের, সুতরাং তোমরা মুসলমানদের চিত্তসমূহকে ধীরস্থির করে রাখ। আমি কাফেরদের মনে ভীতির সঞ্চার করে দেব। কাজেই গর্দানের উপর আঘাত হান এবং তাদেরকে কাট জোড়ায় জোড়ায়। (Remember) when your Lord...

008.013

যেহেতু তারা অবাধ্য হয়েছে আল্লাহ এবং তাঁর রসূলের, সেজন্য এই নির্দেশ। বস্তুতঃ যে লোক আল্লাহ ও রসূলের অবাধ্য হয়, নিঃসন্দেহে আল্লাহর শাস্তি অত্যন্ত কঠোর। This is because they defied and disobeyed Allâh and His Messenger. And whoever defies and disobeys Allâh and His...

008.014

আপাততঃ বর্তমান এ শাস্তি তোমরা আস্বাদন করে নাও এবং জেনে রাখ যে, কাফেরদের জন্য রয়েছে দোযখের আযাব। This is the torment, so taste it, and surely for the disbelievers is the torment of the Fire. ذَلِكُمْ فَذُوقُوهُ وَأَنَّ لِلْكَافِرِينَ عَذَابَ النَّارِ Thalikum...

008.015

হে ঈমানদারগণ, তোমরা যখন কাফেরদের সাথে মুখোমুখী হবে, তখন পশ্চাদপসরণ করবে না। O you who believe! When you meet those who disbelieve, in a battle-field, never turn your backs to them. يَا أَيُّهَا الَّذِينَ آمَنُواْ إِذَا لَقِيتُمُ الَّذِينَ كَفَرُواْ زَحْفاً فَلاَ...

008.016

আর যে লোক সেদিন তাদের থেকে পশ্চাদপসরণ করবে, অবশ্য যে লড়াইয়ের কৌশল পরিবর্তনকল্পে কিংবা যে নিজ সৈন্যদের নিকট আশ্রয় নিতে আসে সে ব্যতীত অন্যরা আল্লাহর গযব সাথে নিয়ে প্রত্যাবর্তন করবে। আর তার ঠিকানা হল জাহান্নাম। বস্তুতঃ সেটা হল নিকৃষ্ট অবস্থান। And whoever turns his...

008.017

সুতরাং তোমরা তাদেরকে হত্যা করনি, বরং আল্লাহই তাদেরকে হত্যা করেছেন। আর তুমি মাটির মুষ্ঠি নিক্ষেপ করনি, যখন তা নিক্ষেপ করেছিলে, বরং তা নিক্ষেপ করেছিলেন আল্লাহ স্বয়ং যেন ঈমানদারদের প্রতি এহসান করতে পারেন যথার্থভাবে। নিঃসন্দেহে আল্লাহ শ্রবণকারী; পরিজ্ঞাত। You killed them...

008.018

এটাতো গেল, আর জেনে রেখো, আল্লাহ নস্যাৎ করে দেবেন কাফেরদের সমস্ত কলা-কৌশল। This (is the fact) and surely, Allâh weakens the deceitful plots of the disbelievers. ذَلِكُمْ وَأَنَّ اللّهَ مُوهِنُ كَيْدِ الْكَافِرِينَ Thalikum waanna Allaha moohinu kaydi alkafireena...

008.019

তোমরা যদি মীমাংসা কামনা কর, তাহলে তোমাদের নিকট মীমাংসা পৌছে গেছে। আর যদি তোমরা প্রত্যাবর্তন কর, তবে তা তোমাদের জন্য উত্তম এবং তোমরা যদি তাই কর, তবে আমি ও তেমনি করব। বস্তুতঃ তোমাদের কোনই কাজে আসবে না তোমাদের দল-বল, তা যত বেশীই হোক। জেনে রেখ আল্লাহ রয়েছেন...

008.020

হে ঈমানদারগণ, আল্লাহ ও তাঁর রসূলের নির্দেশ মান্য কর এবং শোনার পর তা থেকে বিমুখ হয়ো না। O you who believe! Obey Allâh and His Messenger, and turn not away from him (i.e. Messenger Muhammad SAW) while you are hearing. يَا أَيُّهَا الَّذِينَ آمَنُواْ أَطِيعُواْ اللّهَ...