মেঘদল : Tag

আশ্চর্য মেঘদল!

বলো আমাকে রহস্যময় মানুষ, কাকে তুমি সবচেয়ে ভালবাসো? তোমার পিতা, মাতা, ভ্রাতা অথবা ভগ্নীকে? পিতা, মাতা, ভ্রাতা অথবা ভগ্নী-কিছুই নেই আমার। তোমার বন্ধুরা? ঐ শব্দের অর্থ আমি কখনোই জানিনি। তোমার দেশ? জানি না কোন্ দ্রাঘিমায় তার অবস্থান। সৌন্দর্য? পারতাম বটে তাকে ভালবাসতে-...

আবার শহর (ঘুরেফিরে গান তোমাকে নিয়ে যত শত অভিমান)

ঘুরেফিরে গান তোমাকে নিয়ে যত শত অভিমান ঘুরেফিরে গান আবার শহর ঘুরেফিরে গান তোমাকে নিয়ে যত শত অভিমান ঘুরেফিরে গান ঘুরেফিরে ঘুরে ঘুরে ঘুরেফিরে ঘুরেফিরে গান তোমাকে নিয়ে যত শত অভিমান ঘুরেফিরে গান ভাবি শুধু ভাবনার এপিঠ-ওপিঠ ভাবনাই শেষ অকারনে তোমার মুখটাই যেন কবিতার রেশ...

নির্বাণ (কিছু বিষাদ হোক পাখি)

নগরীর নোনা ধরা দেয়ালে কাঁচপোকা সারি সারি নির্বাণ, নির্বাণ ডেকে যায়। কিছু ভুল রঙের ফুল ফুটে আছে রাজপথে কিছু মিথ্যে কথার রঙ আমাদের হৃদয়ে। এখনো এখানে, নিরবে দাঁড়িয়ে অগণিত প্রতিশোধ, জাগে আত্মার ভেতরে কিছু মাতাল হাওয়ার দল শোনে ঝোড়ো সময়ের গান এখানে শুরু হোক রোজকার...

দূর পৃথিবী

দূর পৃথিবীর গল্প শুনো ছায়ার মতো কিছু স্বপ্নএখনো দূরে দূরে চলে যাই ঠিকানা খুঁজে বেড়াই ঘোর লাগা কিছু সন্ধ্যা আর ব্যর্থ যত স্বপ্নতে রঙিন শুনে যাও, শুনতে কি চাও আমাদের যত পরাজয় রাত্রি দিন অন্ধকারে, অন্ধ নদী ছুটে চলে নিরবধি তবু গল্প লিখে যাওয়া, তবু স্বপ্ন স্বপন খেলা...

রঙ্গীন ফেরেশতা (মন গেছে মেঘের বাড়িতে)

মন গেছে মেঘের বাড়িতে আকাশ দিয়েছে ডুব মাতাল তারা রাতের সাথে হেসেই হবে খুন আমার সারা গায়ে তোমার শহরের ধূলো মেখে চলছি বিপুল অন্ধকারে একি রাস্তায় একি পৃথিবীর জলে জলছি বিপুল অন্ধকারে মন গেছে মেঘের বাড়িতে আকাশ দিয়েছে ডুব মাতাল তারা রাতের সাথে হেসেই হবে খুন শহরের কাছে...

পাথুরে দেবী

পাথুরে দেবী, পাতার পাখনা গায়ে স্নান জ্বলে নিহত অগ্নিমাছ নেইকো মানুষ, সুর্যের দিকে যাই, ট্রাফিক ভিড়ে সহস্র পঙ্খীরাজ। আনমনা লোকটা এখনও দাঁড়িয়ে একা রোজকার রেলগাড়ি রেলগাড়ি বিকেল ময়দানে লড়াই মহিষে মহিষে আজ খুন হবে প্রজ্বাল ঐ চাঁদ। সিলিংএ ঝুলছে রুপবতী লাশ মহাশূন্যের...

চার চার চৌকো

চার চার চৌকো জানালায় আমায় দেখে হাতটা বাড়ায়। আকাশ দেখে দিচ্ছি ছুট মাথার ভেতর শব্দজট আমার চোখে লাগায়। আকাশ আমার আমি তোমার কাছে যাবো আমার চৌকো আকাশ আমি তোমার ———— মেঘদল অ্যালবামঃ শহরবন্দী কথা/সুর – মেজবাউর রহমান...

শহরবন্দী

শহরবন্দী মেঘ, ঘুরে ঘুরে একা আমাদের এই সুবর্ন নগরে আমিও পেতেছি কান, শুনি বৃক্ষের ক্রন্দন ধূসর রাজপথের প্রান্তরে। চন্দ্রগ্রস্থ ভোর বড় বিদায় বিদায় তুমি এখনও দেখো সুর্যলোকের ভোর তুমি গাইতেই পার গান, এই সুবর্ন নগরে ভুলে যেতে পার ইতিহাস অর্থহীন নগরকালে। কেটে ফেলা গাছ...

কুমারী

কুমারী উত্তর দাও তুমি যে বাক্য অশ্রুত অন্ধকার আমার হৃদয় প্রবল ঝোঁকে চাপ দেয় তোমার হৃদয়ে যদি কখনো দেখি রুপান্তরে তোমার অস্থিরতা… তবে সেই অস্থিরতায় আমি তোমাকে প্রেমের আগে তোমার প্রেমকে ভালোবাসি আমি তোমাকে প্রেমের আগে তোমার প্রেমকে ভালোবাসি কুমারি বন্ধ চোখে ভাবো আকাশ...

রোদের ফোঁটা (শূন্যতায় ভেসে গেছে)

শূন্যতায় ভেসে গেছে শহরের সব পথঘাট ফিরবে না গতকাল জানি ফিরবে না আগামীকাল। তবু চাইছি তোমাকেই তুলে নিতে অঞ্জলিতে রোদের ফোঁটা। শোন কবি, শোন কবিতা ভাঙো দীর্ঘ মূর্ছনা। রাখো এইখানে হাতটুকু তবু চলে যেতে বোলো না। শূন্যতায় ঢেকে গেছে শহরের বাকী ইতিহাস ফিরবো না তুমি আর আমি...

মুঠোফোন (করতলে চিহ্ন মেঘের স্বর)

করতলে চিহ্ন মেঘের স্বর লোকাল বাসে বাড়ি ফেরা প্রিয় মুখ হৃদয়ের কাছে ব্যর্থ মুঠোফোন দিন রাত্রি গুনগুন হ্যালোজেন রোদ চিলতে বারান্দায় টিকটিকি তাই বলছে ভবিষ্যত তোমার আমার যৌথ ডানা আর আকাশ আর কিছু অবিনাশী গান হ্যালোজেন রোদ চিলতে বারান্দায় টিকটিকি তাই বলছে ভবিষ্যত...

আমার শহর

আমার শহর খুব সহজে একলা পাখির মতো ভিজতে থাকে কেউ জানে না কোন তীব্র শ্লোগান মুখর হতে এই শহরে সেটা কোন সময়ে হঠাৎ চোখে বিজলী ঝলক মুখর শ্লোগান এই শহরে দূর মেঘ মেঘ মেঘ দূর মেঘলা আকাশ ———- মেঘদল অ্যালবামঃ দ্রোহের মন্ত্রে...

চতুর্দিকে (চতুর্দিকে ভীষণ আঁধার)

চতুর্দিকে ভীষণ আঁধার বিষণ্ণ সবই আমি তখন একলা ঘরে কাহারে ভাবি? কাহারে ভাবি? চতুর্দিকে ভীষণ আঁধার বিষণ্ণ সবই আমি তখন একলা ঘরে কাহারে ভাবি? তাহারে ভাবি। কালা পানি, ভালা নয়তো কেউ চায়না দিতে সায় আমি দেখি তাহার ভিতর কাহার মুখ দেখা যায়। এমন আঁধার এমন কালায় পথ হারাইয়া...

কবিয়াল (ভীষণ গন্ধ ডুমুর ফুলে,মাকালের লাল মেখে)

ভীষণ গন্ধ ডুমুর ফুলে,মাকালের লাল মেখে শুকনো নদী বুকে,রাতের রোদ্দুরে বুনেছি ঘাসফুল কবিতা তুমি কবের কবিতা? কাক ডাকা ভোরে হৃদয় উজাড় করে গদ্যের যুক্তিতে ছন্দ শেখাও? আমি কবিয়াল নই আমি কবিয়াল নই নই গানের মিছিল কোন! মগজের বালুচরে ভীষণ অসম্ভবে শুভ্র হাসি আঁকে এই কালো...
ওম

ওম

[youtube]https://www.youtube.com/watch?v=nsmaEdh7WMQ[/youtube] ওম অখণ্ডমণ্ডলাকারং,ব্যাপ্তং যেন চরাচরম্ তত্পদং দর্শিতং যেন, তস্মৈ শ্রীগুরবে নমঃ লাব্বাইক, আল্লাহুম্মা লাব্বাইক, লাব্বাইক লা শারিকা লা ইন্নাল হা’মদা ওয়াননি’মাতা লাকা ওয়ালমুলক’ লা শারিকা লা বুদ্ধং শরণং...

জানো কি

জানো কি, কতটা ক্লান্ত হলে পেছনের পথ পেছনেই পড়ে থাকে জানো কি, কি করে স্বদেশ হারায়ে কিভাবেই আমি কিভাবেই তুমি পরবাসী… আমি জানি সেই পথ দূর… ঠিকানা খুঁজে আর লাভ কি আমরা কেবল বেড়ে উঠি, আকাশ ফুঁড়ে মেঘে মেঘে দ্বন্দ্বময় বালিঘড়ি, প্রথম সকাল নাকি গোধুলী তবু কেন...

মেঘ (আমি হেঁটে যাই মেঘের কাছে)

আমি হেঁটে যাই মেঘের কাছে প্রশ্বাসে ছুয়েঁছি আকাশ দুঃখ ছুঁয়ে যায় বাতাশে বাতাশে আমার সকল পাপ ক্ষমা করে দিও তুমি মেঘ, ভালোবাসা হয়ো তুমি পরজনমে বুকের আকাশ খুলে দাঁড়িয়ে শূণ্যে, সকল শূণ্যতা চোখে নিয়ে আমি হেঁটে যাই মেঘের কাছে ———— মেঘদল...

ক্রুসেড (মানুষের কজন ভগবান)

মানুষের ক’জন ভগবান? ক’জনে ভাগ্য লিখেন, ক’জন জীবন সামলান? আকাশে উড়ছে বোমারু ভগবান, মানুষ ঝলসে যিনি গণতন্ত্র এনে দেন। মাটিতে পুতে আছে ক্লাস্টার ফুল, ছুয়ে দিলে জ্বলে ওঠে, সে তো শিশুদের ভুল। দু’হাত হারিয়ে ডানা কাটা পরী আজ যে শিশু, শুনতে কী পাও...

ব্যবচ্ছেদ

চতুর্মাত্রিকায় ভূমন্ডলায়ন নারায়ণি নমস্তুতে প্রেত সর্বস্বতায় উলঙ্গ তরবারি নাচে ধমণীতে… “একটা ব্যবচ্ছেদ যন্ত্র একটা হাইড্রোজেন স্ট্রফি নিয়ে যা খুশী কর দেখবে সম্ভব হয়েছে উত্‍কৃষ্টতম আণবিক বিস্ফোরণ, তারপর ভাব হোক ভ্রুণের মজাদার সব বিকৃতি, একেই বলে প্রসন্ন...

আকাশ মেঘে ঢাকা

আকাশ মেঘে ঢাকা ঢেকে যায় সব রোদ ছায়া ছায়া অন্ধকারে উড়ে যায় সব বোধ আকাশ মেঘে ঢাকা উড়ে যায় বিষণ্ন পাখি আমি একা জেগে থাকি অন্ধকারের গান উড়ায় না অভিমান আমরা তবু জেগে থাকি উড়ে যায় বিষণ্ন পাখি চোখের জলে আগুন জ্বলে বৃষ্টি তুমি জান কি? চোখে চেতনায় অন্য আলো স্তব্ধ...
পাতা 1/212