বাপ্পী লাহিড়ী : Tag

মাকা যাই মাকা যাই রাম পাম পো

মাকা যাই মাকা যাই রাম পাম পো মাকা যাই মাকা যাই রাম পাম পো।। মাকা যাই মাকা যাই রাম পাম পো মাকা যাই মাকা যাই রাম পাম পো হলুদ বেগুনি সবুজ সাদা নীল রঙে রঙে মিশে হলো তোমার আমার মিল।। আরে জমেছে মন মহুয়ায় মৌ কথা কও, কও কথা কও বউ। ঝিলমিল রোদে জ্বলে তোমার চোখের ঝিল রঙে রঙে...

মঙ্গল দ্বীপ জ্বেলে

মঙ্গল দ্বীপ জ্বেলে অন্ধকারে দুচোখ আলোয় ভরো প্রভু তবু যারা বিশ্বাস করে না তুমি আছ তাদের মার্জনা করো তুমি।। যে তুমি আলো দিতে প্রতিদিন সূর্য উঠাও ওদের বুঝিয়ে দাও সেই তুমি পাথরেও ফুল যে ফোঁটাও। জীবন মরুতে করুনা ধারায় ধরো প্রভু।। বল তার কি অপরাদ জন্ম হয়েছে যার পাকে তোমার...

চাঁদেতে জোসনা পাওয়া যায়

চাঁদেতে জোসনা পাওয়া যায় তারাতে নয় একজনই হয় মনের মানুষ সকলে নয় তুমি আমার সেই একজন একথা যেওনা ভুলে মায়ায় বাঁধা এ যে মালা এ মালা যেওনা খুলে প্রেম বলে যে কথা মনে রেখ সে কথা …(?) রূপকথা হয়ে যায় ————- বাপ্পী লাহিড়ী, পুলক...

শেষে ট্রামে দুজনাতে

“এখন তুমি কোথায় আছো? কেমন আছো? জানিনা। যেখানেই থাকো, ভালো আছো তো? মনে পড়ে কি সেই রাতের কথা?” শেষে ট্রামে দুজনাতে ফাগুনের একরাতে দেখা হয়ে গেলো তিনটি বছর পরে জানিনা কেমন করে এমন যে হলো বললে আমায় তুমি আছো গো কেমন উত্তরে বললাম রেখেছো যেমন মনে সুখের এক ঝড় বয়ে...

সেই বৃষ্টি রাতের কথা

সেই বৃষ্টি রাতের কথা আজ মনে পড়ে যায় নিজেকে লুকালে তুমি জলে ভেজা শাড়িটায় সে রাত কোথায় সে রাত কোথায় যেতে যেতে দুজনায় হঠাত পথের মাঝে অঝরে নামলো বৃষ্টি অঝরে নামলো বৃষ্টি কাছে কোন ঘর নেই ছাউনিও কিছু নেই বৃষ্টিটা লাগলো মিষ্টি বৃষ্টিটা লাগলো মিষ্টি সে রাত কোথায় সে রাত কোথায়...

লিখে দেবো লিখে দেবো লিখে দেবো

লিখে দেবো লিখে দেবো লিখে দেবো লিখে দেবো লিখে দেবো লিখে দেবো প্রিয়তমা তোমার নামে এ জীবন তোমার নামে দুনিয়া অবাক চোখে দেখে যাও আজ আমাকে দেউলিয়া একটা পাগল সব দিলো প্রেমের নামে যেখানেই তুমি যাবে সেখানে আমায় পাবে আমি আছি ছড়িয়ে তোমার আগে পিছু ডাইনে বায়ে...

কেউ গায়ক হয়ে যায়

কেউ গায়ক হয়ে যায় কেউ কবি হয়ে যায় কেউ ছবি হয়ে যায় তোমাকে দেখে তুমি তো জানো না খবর রাখো না শিল্পী করেছো আমাকে তোমার পথের ধারে কত আশা করে কতদিন যে থাকি দাঁড়িয়ে যদি মনের ভুলে ঐ চোখটা তুলে দেখ একটি বার তাকিয়ে তোমায় দেখে দেখে ছবি এঁকে এঁকে আমি সাজাই দুচোখে আমার কোথায় রঙ...

কাঁকন বিনা সুন্দরীর হাত

কাঁকন বিনা সুন্দরীর হাত যেমন ফাঁকা লাগে তুমি বিনা আমার ঘর তেমন ফাঁকা লাগে কাজল বিনা নারীর আঁখি মানায় না যেমন তুমি বিনা মানায় না তেমন আমার মন বন্ধু তুমি তোলো যদি পদ্ম হয়ে রই পোষো যদি ময়না হয়ে কৃষ্ণকথা কই কণ্ঠে তোমার কণ্ঠী হতে আমার যে সাধ জাগে বন্ধু যদি দাঁতে কাটো মৌরি...

জীবনটা কিছু নয় শুধু এক মুঠো ধূলো

জীবনটা কিছু নয় শুধু এক মুঠো ধূলো চৈতি বাতাসে উড়া শিমুলেরই তুলো কেন তবে গান সাজা সারা মুখে রঙ মাজা বেলা শেষ হলে পরে পড়ে থাকে সাজ ঘরে জরির মুকুট আর মেকি পরচুলো কেন মন ভুল করে ফুটন্ত ফুল ঝরে একা একা বসে বসে কি হবে অংক কষে হিসাবের খাতাটাকে বুঝে-শুনে (কেন?)...

জীবনের এতোগুলো দিন

জীবনের এতোগুলো দিন কেটে গেল একা একা তুমি কেন আগে আসনি আগে কেন দাওনি দেখা পৃথিবীতে ভালোবাসবার সময় যে অল্প ভারী শুধু শুধু এতটা সময় হারালো যে দোষে তোমারি আগে এলে তোমাকে নিয়ে হতো আরো গল্প লেখা তুমি কেন আগে আসনি আগে কেন দাওনি দেখা যৌবন যে কটা দিনের সে কদিন ভালোবেসে যাও...

বলো বলো সুন্দরী কার দাম বেশী

বলো বলো সুন্দরী কার দাম বেশী পয়সার দাম নাকি প্রেমে ধরা হাসি পয়সাটা নিয়ে যায় না বলে না কেউ তাজা প্রেম তলায় না হয় নাকো বাসি তুমি আমার আমি তোমার আর যেন কেউ না হয় তোমার শুনে শুনে কান পচে যায় নেই তুলনা তবু একথার সবার বড় সবার উঁচু কেউ যদি রয় পৃথিবীতে নাম তার প্রেম আসনটা তার...

আমার এই জীবন মরণ শুধুই তোমার

আমার এই জীবন মরণ শুধুই তোমার আর কারো নয় তুমি যে ভালোবাসায় ভরিয়ে দিলে আমার হৃদয় তোমারি মনের কাছে শিখে নিলাম আমি জগতে প্রেম যে হলো সবার চেয়ে দামী এতোদিন যা পেয়েছি আসল সে নয় নকল প্রণয় তুমি যে ভালোবাসার ভরিয়ে দিলে আমার হৃদয় কাগজের ফুলের বাগান অনেক দূরে ফেলে তুমি যে...

ধূসর গোধূলী এলো

ধূসর গোধূলী এলো সব আলো নিভে গেলো কিছুইতো ধরে রাখা গেলো না আমার এ মনটা যে পাথরের মন নয় তোমায় তা বলে যা হলো জানানো হলো না এই চোখের পাতায় স্বপ্নের অক্ষরেতে কিছু লেখা যায় যে কথা গেলাম বলে সে শুধু সাজানো কথা বুকের কথাতো মুখে এলো না নিজেকে কাঁদিয়ে যত খালি করে নাও নতুন...

সব লাল পাথরই তো চুনি হতে পারে না

সব লাল পাথরই তো চুনি হতে পারে না সব প্রেম মিলনের মালা পেতে পারে না পাশাপাশি দুটি ফুল ফোটে যে বাগিচায় একজন ঠাঁই পায় দেবতার দুটি পায় সমাধীর বেদী তার ভরে যায় একজন সব ফুল দেবালয়ে পার্ না তো যেতে হায় । কেউ বা হাসে সারাটি জীবন অশ্রু ঝরায় কারও বা নয়ন কেউ বা দু হাতে কেবলই...