Bangla Lyrics । বাংলা লিরিক

বাংলা লিরিক, বাংলা গানের কথা, বাংলা লিরিক্স

মাটির পিঞ্জিরার মাঝে বন্দি হইয়া রে

মাটির পিঞ্জিরার মাঝে বন্দি হইয়া রে কান্দে হাসন রাজার মন মনিয়া রে।। মায়ে বাপে বন্দী কইলা, খুশির মাঝারে লালে ধলায় বন্দী হইলাম, পিঞ্জিরার মাঝারে।। উড়িয়া যায় রে ময়না পাখি, পিঞ্জিরায় হইল বন্দি মায়ে বাপে লাগাইলা, মায়া জালের আন্দি।। পিঞ্জিরায় সামাইয়া ময়নায় ছটফট করে মজবুত...

হঠাৎ নালিশ হয় কি মতে

হঠাৎ নালিশ হয় কি মতে। দিন শমন জারী হাতে হাতে৷। আমার উকিল যারা ছিল, তারা সব চলে গেল আমার জামিন কেউ না হইল, আমায় ঘিরে নিলো দণ্ডকেতে।। তোমার বঁধূ যারা ছিল, আমার পোশাক কেড়ে নিল আমায় জেলখানার পোশাক পরাল, আমায় রাখলো অন্ধকার গারদেতে এশার নামাজ কালে, বিবি বলে চাউল ফুরাইছে...

প্ৰেম রসিক হবো কেমনে

প্ৰেম রসিক হবো কেমনে। করে মানা কাম ছাড়ে না। মদনে। মদন করে তৌসিলদারী এই দেহের মাঝার মদন তো দুষ্ট ভারি তারে দেও তৌসিলদারী করে হাকিম মুসীগিরি গোপনে। চোর দিয়ে সব করায় চুরি একি কারখানা আমি সে ভাব জিজ্ঞাসিলে বলে মুই জানিনা। চোরে বা চুরি করে, সাধু সব পালায় ওরে সাধু থাকে কোন...

কই, কই, কই, কই সে জনে

কই, কই, কই, কই সে জনে। কে জানে সে জানে।। খুঁজি তারে স্থানে স্থানে, বনে-উপবনে মসজিদ ও মন্দিরে আমি তারে খুঁজে পাইনে কেহই বলে না কোথায় সে জনে যদি জান কেউ বলে দেও যাই তার অন্বেষণে। বায়ু কি অনলে, জলে কিংবা স্থলে থাক সে কি আকাশে-কিংবা সে পাতালে তারে দেখিতে মন ব্যাকুল, অকুল...

করবে কি হে জাইতের বিচার এসব ফেলে যেতে হবে

করবে কি হে জাইতের বিচার এসব ফেলে যেতে হবে তোমার সকলি যে থাকবে পড়ে, ‘হু’ হক নামটি সঙ্গে যাবে৷। দেখ ভাই হিন্দু-মুসলমান ভাবিছ সবে ভিন্ন ভিন্ন এসব ঘুচিবে সে দিন তোমায় যে দিন দীন ইসলাম তলব দিবে। গড়েছে এক কারিগরে স্ত্রী আর পুরুষেরে দুনিয়ার কারবারের তরে শেষে আদিতে আদি...

কত দিনের কত ব্যথা আমি সামলাইয়া থুইছি মনে

কত দিনের কত ব্যথা আমি সামলাইয়া থুইছি মনে ব্যথার বন্যা বইয়া যাইব আমার ব্যথা মাইনষে যদি জানে থাইকা থাইকা মনে পড়েগো পুরান ব্যথার কথা আমি হারাইয়া যাই সকল দিশা সামাল দিব কেমনে যার জন্য আমার এত ব্যথা সেও তাহা জানে জাইনাও করে না জানার ভান বুঝলাম তা অনুমানে যারা আমার সঙ্গের...

আমি যারে বাসি ভালো সে কি রে তা জানে

আমি যারে বাসি ভালো সে কি রে তা জানে আমি যারে বাসি ভালো সে কি রে তা জানে জানলে ব্যাথা অমন করে দিত না আর প্রাণে আমি যার লাগিয়া সদাই কান্দি গো কান্না পৌঁছায় না তার কানে এই জগতে ভালোবাসা আমার হলো না ভালোবাসার বিনিময়ে মন কিছুই পেল না আমি পরকে দিয়ে ভালোবাসা রে ভুল করিলাম...

আমি তা আবার হারাই রে (ও তার চপল চাহনি যেন হাসির খনি)

আমি তা আবার হারাই রে ও তার চপল চাহনি যেন হাসির খনি আমি তা হারায়ে পাই রে ও সে গোলক ধাঁধা, ধাঁধার ফেড়ে পরে আমি তা আবার হারাই রে আমর চাতক কামনা অনাদরে শুকিয়ে নৃত্যে নদী হয়ে ধায় রে স্বপ্ন শিকলে স্বপ্ন শিকলে আটকে ক্লান্ত পা ঘুম রাতের ময়ুরী হারা হরিণী মন তবু আশারা বড় হতে...

কে আমাকে ভালবাসিবে

কে আমাকে ভালবাসিবে কে আমাকে ভালবাসিবে কে জানাবে শেষ বিদায় আমি কাউকে ডাকিনাই আমিতো কাউকে শুধাই নাই স্বপ্ন রেখে গল্প রেখে আমি যাই চলে, আমি যাই আমার ছিড়েছে পাল, ভেঙ্গেছে বৈঠা খবর রাখি নাই আমি তো আমাকে জানি নাই আমি তো আমাকে বুঝি নাই কে আমাকে পাড় করিবে উতল দরিয়ায় আমি তো...

মানুষ আমায় প্রশ্ন করে

মানুষ আমায় প্রশ্ন করে মানুষ আমায় প্রশ্ন করে কি পেলি পাগল কি করে বলি তোমাদের- কোথায় ছিলাম এখান থেকে দূরে, কি করে বলি তোমাদের- এই যে একটা গান কেউ কেউ তোমরাই যে সুরে, দূরে কি করে বলি তোমাদের- তোমাদের মুখ, মুখচ্ছবি ব্যথা, কথা এই হৃদয় জুড়ে, দূরে কি করে বলি...

অসীম শুন্যতার মাঝে

অসীম শুন্যতার মাঝে অসীম শুন্যতার মাঝে কে বাঁজাই আর কে বাঁজে কেউ না কেউ না নিজে নিজে- সাধের বনভূমি ছাই, ঝরণারা কেঁদে বলে কি যে এই আর নেই তো সেই আমি প্রিয় আগুনে ভিঁজে ভিঁজে- হৃদয়ের কলিগুলো ফোটেনা মেলিনাই সবটুকু চোখ বেদনার ক্ষত আরো গাঢ় হয় মধুর গভীর রাত ভাঙল সাঝে- তাই তো...

পাখি উড়িয়া উড়িয়া

পাখি উড়িয়া উড়িয়া পাখি উড়িয়া উড়িয়া উড়িয়া উড়িয়া উড়িয়ারে যায় একটা সাদা পাখি আমাকে ভাবায়- পাখির ঠোঁটের ক্ষীণ তৃণ আমাকে জানায় তোমার ঘরে ফেরার বেলা যায়- ভাবি কোথায় ফিরিব, ঘরইতো বাঁধি নাই আসলে কি ফেরা যায় আসলে কি ফেরা হয় নাকি শুধু শুধু পরে থাকা ধুল আর ধুলার মায়ায়- একটা সাদা...

অচেনা পথিক (তারা ভরা রাত)

অচেনা পথিক তারা ভরা রাত মন ছুঁয়ে জল জোনাকির কোলাহলে অচেনা পথিক কোথা যাবি চল অনেক দূর, বহুদূর যাবার কথা যেতে হবে যেন সব ভুলে, কোন দূ:খ নেই অচেনা পথিক যাও যাও পা পসকালেই শুধু হয় গল্পের শেষ নেমে যাবে সাবধানে প্রতি ধাপ বন্ধু এ গানের আরো কিছু লাইন আছে বাকি ওরা এক্ষুনি এসে...

আমি মন মন্দিরে পূজা দেব

আমি মন-মন্দিরে পূজা দেব https://www.youtube.com/watch?v=lXaptNpg7yc আমি মন মন্দিরে পূজা দেব সত্যম শিবম অনন্তম আমি দেল কাবাতে নামাজ পড়ব আল্লাহ হু-আকবর ... হু-আকবর।। আমি মন মন্দিরে পূজা দেব পড়ব নামাজ দেল কাবায় মসজিদ মন্দিরে জেতে বলনা আমায় তোমরা মন্দির মসজিদে যেতে বলনা...

আমি খোলা জানালা তুমি ওই দখিনা বাতাস

আমি খোলা জানালা তুমি ওই দখিনা বাতাস https://www.youtube.com/watch?v=52w3jiVVXq4 আমি খোলা জানালা তুমি ওই দখিনা বাতাস আমি নিঝুম রাত তুমি কোজাগরি আকাশ ।। উধাও সাগর তুমি অঢেল নীলে আমি অস্তরাগ শেষ বিকেলে তুমি কথা না রাখা নিরালা দুপুর আমি বিমনা অবকাশ ।। শুধুই ছবি আমি ধুলোয়...

ভাঙ্গা পাড়ে উদলারে দেউড়ী (অরূপ চাষী)

ভাঙ্গা পাড়ে উদলারে দেউড়ী, মেঘলা নীল অন্তর বুকের ভেতর খাঁ খাঁ করে দগ্ধ তেপান্তর। অরূপ চাষী লাঙ্গল চালায় বুকেরও উপর, অনাবাদী বালুরও বনে তুলিব বাসন। বীজ বুনেছি, ঢেলেছি জল মরুরও উপর, হারায়েছি যে ধন তাহার, না রাখি খবর। -------------- পথিক...

জানিনা কেনো অন্ধকারে তুমি একা

https://www.youtube.com/watch?v=tOMnll5HN-4 জানিনা কেনো অন্ধকারে তুমি একা কাঁদো ঐ চোখদুটি দু'হাতে ঢেকে যদি চাও বলো না কার আজ আমাকে বেদনা কাকে বলে জানি তার পরিচয়-- সম্মুখের ধ্রুবতারা পথ বলে দেবে ঠিকানা কোনখানে ঠিক জানা যাবে মানুষের বেঁচে থাকা দেয়ালের বাঁধা ভেঙে মানুষের...

হৃৎকমলমঞ্চে দোলে করালবদনী শ্যামা

গাঢ়াভৈরবী – আড়া হৃৎকমলমঞ্চে দোলে করালবদনী শ্যামা । মনপবনে দুলাইছে দিবস রজনী ওমা॥ ইড়া পিঙ্গলা নামা, সুষুম্না মনোরমা। তার মধ্যে গাঁথা শ্যামা, ব্রহ্মসনাতনী॥ আবির রুধির তায়, কি শোভা হয়েছে গায়। কাম আদি মোহ যায়, হেরিলে অমনি॥ যে দেখেছে মায়ের দোল, সে পেয়েছে মায়ের...

রসনে, কালী নাম রটরে

জংলা – একতালা রসনে, কালী নাম রটরে। মৃত্যুরূপা নিতান্ত ধরেছে জঠরে॥ কালী যার হৃদে জাগে, তর্ক তার কোথা লাগে, কেবল বাদার্থমাত্র ঘট-পটরে॥ রসনারে কর বশ, শ্যামানামামৃতরস, তুমি গান কর পান কর, সে পাত্র বটরে॥ সুধাময়ী কালীর নাম, কেবল কৈবল্যধাম, করে জপনা কালীর নামে, কি উৎকটরে॥...

মায়ের এম্নি বিচার বটে

প্রসাদী – একতালা মায়ের এম্নি বিচার বটে। যেজন দিবানিশি দুর্গা বলে, তার কপালে বিপদ ঘটে॥ হুজুরেতে আরজি দিয়ে মা, দাঁড়িয়ে আছি করপুটে। কবে আদালতে শুনানি হবে মা, নিস্তার পাব এ সঙ্কটে॥ সওয়াল-জবাব করব কি মা, বুদ্ধি নাইকো আমার ঘটে। ওমা ভরসা কেবল শিববাক্য ঐক্য বেদাগমে রটে॥...