Bangla Lyrics । বাংলা লিরিক

বাংলা লিরিক, বাংলা গানের কথা, বাংলা লিরিক্স

সই পিরীতি আখর তিন

সই! পিরীতি আখর তিন। জনম অবধি,                     ভাবি নিরবধি, না জানিয়ে রাতি দিন।। পিরীতি পিরীতি,                     সব জনা কহে, পিরীতি কেমন রীত। রসের স্বরূপ,                     পিরীতি মূরতি, কেবা করে পরতীত।। পিরীতি মন্তর,                     জপে যেই জন, নাহিল...

পিরীতি পিরীতি এ রীতি মূরতি হৃদয়ে লাগল সে

পিরীতি পিরীতি,                   এ রীতি মূরতি, হৃদয়ে লাগল সে। পরাণ ছাড়িলে,                   পিরীতি না ছাড়ে, পিরীতি গঢ়ল কে।। পিরীতি বলিয়া,                   এ তিন আঁখর, না জানি আছিল কথা। পিরীতি কণ্টক,                  হিয়ায় ফুটিল, পরাণ পুতলী যথা।। পিরীতি পিরীতি,      ...

পিরীতি বলিয়া একটি কমল রসের সাগর মাঝে

পিরীতি বলিয়া,                        একটি কমল, রসের সাগর মাঝে। প্রেম পরিমল,                        লুবধ ভ্রমর, ধায়ল আপন কাজে।। ভ্রমরা জানয়ে,                        কমল মাধুরী, তেঁহ সে তাহার বশ। রসিক জানয়ে,                        রসের চাতুরী, আনে কহে অপযশ।। সই! একথা...

পিরীতি সুখের সাগর দেখিয়া নাহিতে নামিলাম তায়

পিরীতি সুখের                    সাগর দেখিয়া নাহিতে নামিলাম তায়। নাহিয়া উঠিয়া,                    ফিরিয়া চাহিতে, লাগিল দুখের বায়।। কেবা নিরমিল,                    প্রেম সরোবর, নিরমল তার জল। দুখের মকর,                    ফিরে নিরন্তর, প্রাণ করে টলমল।। গুরুজন জ্বালা,    ...

পিরীতি বলিয়া এ তিন আঁখর ভুবনে আনিল কে

পিরীতি বলিয়া,                      এ তিন আঁখর, ভুবনে আনিল কে। মধুর বলিয়া,                      ছানিয়া খাইনু, তিতায় তিতিল দে।। সই এ কথা কহন নহে। হিয়ার ভিতর,                      বসতি করিয়া, কখন কি জানি কহে।। পিয়ার পিরীতি,                      প্রথম আরতি, তাহার নাহিক...

যাইতে জলে কদম্বতলে ছলিতে গোপের নারী

যাইতে জলে,                 কদম্বতলে, ছলিতে গোপের নারী। কালিয়া বরণ,                 হিরণ পিঁধন, বাঁকিয়া রহিল ঠারি।। মোহন মুরলী হাতে। যে পথে যাইবে,                 গোপের বালা, দাঁড়াইল সেই পথে।। "যাও আন বাটে,                 গেলে এ ঘাটে, বড়ই বাধিবে লেঠা।" সখী কহে "নীতি,...

একদিন বর নাগর শেখর কদম্ব তরুর তলে

একদিন বর,                    নাগর শেখর, কদম্ব তরুর তলে। বৃষভানু সূতে,                    সখীগণ সাথে, যাইতে যমুনাজলে।। রসের শেখর,                   নাগর চতুর, উপনীত সেই পথে। শির পরশিয়া,                   বচনের ছলে, সঙ্কেত করল তাতে।। গোধন চালায়ে,                 ...

শুনিয়া মালার কথা রসিক সুজন

শুনিয়া মালার কথা রসিক সুজন। গ্রহ বিপ্র বেশে যান ভানুর ভবন।। পাঁজি লয়ে কক্ষে করি ফিরে দ্বারে দ্বারে। উপনীত রাই পাশে ভানু রাজ পুরে।। বিশাখা দেখিয়া তবে নিবাস জিজ্ঞাসে। শ্যামল সুন্দর লহু লহু করি হাসে।। বিপ্র কহে ঘর মোর হস্তীনা নগর। বিদেশে বেড়ায়ে খাই শুন হে উত্তর।। প্রশ্ন...

নাগর আপনি হৈলা বণিকিনী কৌতুক করিয়া মনে

নাগর আপনি                     হৈলা বণিকিনী, কৌতুক করিয়া মনে। চুয়া যে চন্দন,                    আমলকী-বর্ত্তন, যতন করিয়া আনে।। কেশর, যাবক,                    কস্তূরী, দ্রাবক, আনিল বেণার জড়। সোন্ধা সুকুঙ্কুম,                    কর্পূর চন্দন, আনিল মূথা শিকড়।। থালিতে...

দেয়াশিনী বেশে মহলে প্রবেশে রাধিকা দেখিবার তরে

দেয়াশিনী বেশে,                     মহলে প্রবেশে, রাধিকা দেখিবার তরে। সুরক্ত চন্দন,                     কপালে লেপন, কুণ্ডল কাণেতে পরে।। নাগর সাজী বাম করে ধরে। পিঁধিয়া বিভূতি,                     সাজল মূরতি, রুদ্রাক্ষ জপয়ে করে।। কহে "জয় দেবী                     ব্রজপুর...

মধুরা পুরেতে ধাম কপটে বলয়ে শ্যাম আইলাম এই বৃন্দাবনে

মধুরা পুরেতে ধাম,                      কপটে বলয়ে শ্যাম, আইলাম এই বৃন্দাবনে। মম মনে বাঞ্ছা এই,                     সকল তোমারে কই, শুন শুন বলি তোমা স্থানে।। দেবী আরাধনা করি,                      ভিক্ষার লাগিয়া ফিরি, আর করি তীর্থেতে ভ্রমন। হই আমি তীর্থবাসী,              ...

দেয়াশিনী বেশ সাজি বিনোদ রায়

দেয়াশিনী বেশ সাজি বিনোদ রায়। ধীরি ধীরি করি চলে হরষ অন্তর।। গোকুল নগরে এই শব্দ উঠিল। এক জন দেয়াশিনী ব্রজেতে আইল।। তাহারে দেখিবার তরে লোকের গহন। সব ব্রজবাসী চলে হরষিত মন।। প্রণমিল দেয়াশিনীর চরণ কমলে। বয়ান ভাসিল প্রেমে নয়নের জলে। দ্বিজ চণ্ডীদাসের মনে আনন্দ বাড়িল। কোথা...

আপন বসন ঘুচায়ে তখন লেপয়ে কেশেতে মাটী

আপন বসন                 ঘুচায়ে তখন, লেপয়ে কেশেতে মাটী তবল্লক ছাঁদে,                 বসন পিঁধে, সঙ্গে চলয়ে হাঁটি।। মনোহর ঝুলি কাঁধে। তাহার ভিতর,                 শিকড় নিকর, যতন করিয়া বাঁধে।। ঘুচাইয়া লাজে,                 চিকিচ্ছার কাজে, বসিলা রোগীর কাছে। ঘুচায়ে বসন,    ...

গোকুল নগরে ফিরি ঘরে ঘরে বেড়াই চিকিৎসা করি

"গোকুল নগরে,                     ফিরি ঘরে ঘরে, বেড়াই চিকিৎসা করি। যে রোগ যাহার,                     দেখি একবার, ভাল যে করিতে পারি।। শিরে শির শূল,                     পিরিতের জ্বর, হয়ে থাকে যে রোগীর। বচন না চলে,                     আঁখি নাহি মেলে, তাহারে পিয়াই নীর।।...

এক দিন মনে রভস কাজ মালিনী হইল রসিক রাজ

এক দিন মনে রভস কাজ। মালিনী হইল রসিক রাজ।। ফুলমালা গাঁথি ঝুলায়ে হাতে। "কে নিবে, কে নিবে" ফুকারে পথে।। তুরিতে আইলা ভানুর বাড়ী। রাই কহে "কত লইবে কড়ি?" মালিনী লইয়া নিভৃতে বসি। মালা মূল করে ঈষৎ হাসি।। মালিনী কহয়ে "সাজাই আগে। পাছে দিবা কড়ি যতেক লাগে।।" এত কহি মালা পরায় গলে।...

নাপিতিনী কহে শুন লো সই অনাথী জনের বেতন কই

নাপিতিনী কহে "শুন লো সই। অনাথী জনের বেতন কই? কহ তুমি যাই রাইয়ের কাছে। বেতন লাগিয়া বসিয়া আছে।। যদি কহে তবে নিকটে যাই। যে ধন দেন তা সাক্ষাতে পাই।।" শুনি সখী কহে রাইয়ের কাছে। "নাপিতিনী বসি আছয়ে নাছে"।। রাই কহে "তবে আনহ তায়। কতেক বেতন আমায় চায়?" সখী যাই কবে ডাকয়ে "আইস।...

ধরি নাপিতিনী বেশ মহলেতে পরবেশ যেখানেতে বসিয়াছে রাই

ধরি নাপিতিনী বেশ,                     মহলেতে পরবেশ, যেখানেতে বসিয়াছে রাই। হাতে দিয়া দরপণী,                      খোলে নখ-রঞ্জণী, বোলে বৈস, দেই কামাই।। বসিলা যে রসবতী নারী। খুলিল কনক বাটী,                      আনিয়া জলের ঘটী, ঢালিলেক সুবাসিত বারি।। করে নখ-রঞ্জণী,      ...

না ভাঙ্গিল মান দেখি চতুর নাগর

না ভাঙ্গিল মান দেখি চতুর নাগর। বিশাখারে ডাকি কহে বচন উত্তর।। শুনহ আমার কথা বিশাখা সুন্দরী। আমারে সাজায়ে দেহ নবীন এক নারী।। চূড়া ধড়া তেয়াগিয়া কাঁচলি পরিল। নাপিতিনী বেশ ধরি নাগর দাঁড়াইল।। জয় রাধে শ্রীরাধে বলি করিল গমন। রাইয়ের মন্দিরে আসি দিল দরশন।। "কি লাগিয়ে ধূলায় পড়ে...

নামিল আসিয়া বসিল হাসিয়া কহয়ে বেতন দেও

নামিল আসিয়া,                   বসিল হাসিয়া, কহয়ে বেতন দেও। বেতনের কালে,                   হাত দিয়া গালে, যুবতী সকলে কয়।। সই! বাজিকরে নিবে যে কি? যত কিছু দেই,                   কিছুই না লয়, (বলে) আমারে জিজ্ঞাস কি? মনে এই কই,                   দেহ কুচ-গিরি, আর তব...

কানুর পিরীতি কুহকের রীতি সকলি মিছাই রঙ্গ

কানুর পিরীতি,                 কুহকের রীতি, সকলি মিছাই রঙ্গ। দড়াদড়ি লৈঞা,                 গ্রামেতে চড়িয়া, ফিরয়ে করিয়ে সঙ্গ।। সই! কানু বড় জানে বাজি। বাঁশ বংশীধারি,                 মদন সঙ্গে করি, ঢোলক ঢালক সাজি।। মদন ঘুরিয়া,                 বেড়ায় ফিরিয়া, যুবতী বাহির করে।...

পাতা 20/110« ১ম...10...1819202122...304050...শেষ »