ব্যান্ড ও পপ

অকুল অন্ধকার ঝাঁপ দেই সব ভুলে (শেষ)

অকুল অন্ধকার ঝাঁপ দেই সব ভুলে ডুবে যাই নিমিষেই নিমিষেই।। জানি ডুবে যেতে যেতে মিলিয়ে যাবে যতো পুরোনো ফাঁদ তুমি বুনে রেখেছিলে শুন্য হবে আমার অপরাধ একান্ত আমার পুরোনো গন্ধটাও মিলিয়ে যাবে হরিয়ে যাবে গায়েবী শোকে। গল্পের কড়িকাঠে তুমি জন্ম দেবে অন্য আমাকে অন্য আমাকে আর আমি...

অচিন পাখি দিল ফাঁকি (সূর্য)

অচিন পাখি দিল ফাঁকি, উদাস বাউল কাকে ডাকি জলের মাঝে জীবনগুলো, তেপান্তরের পাথর ধুলো সাগর তীরের জীবন দেয়াল, সূর্যটাকে রাখিস খেয়াল গাছের চূড়ায় নতুন শহর, নদী পানি ফুলের বহর সময় কাঁটা আতশবাজি, কাঁটাতারে বৃক্ষরাজি স্বপ্ন দহণ পূণ্য না সয় সত্যবচন ধর্মে না রয় কথার মাঝে নোনা...

অচেনা পথিক (তারা ভরা রাত)

অচেনা পথিক তারা ভরা রাত মন ছুঁয়ে জল জোনাকির কোলাহলে অচেনা পথিক কোথা যাবি চল অনেক দূর, বহুদূর যাবার কথা যেতে হবে যেন সব ভুলে, কোন দূ:খ নেই অচেনা পথিক যাও যাও পা পসকালেই শুধু হয় গল্পের শেষ নেমে যাবে সাবধানে প্রতি ধাপ বন্ধু এ গানের আরো কিছু লাইন আছে বাকি ওরা এক্ষুনি এসে...

অচেনা শহরে

এক স্বচ্ছ অনাবিল আকাশে মেঘ ভাসে প্রশান্ত সময়ের পটভূমিতে রঙিন ঘুড়ি এক ওড়ে আনমনে এক ছোট্ট মায়াবী শহরে একটি ছেলে একাকী ভাবে সেই ঘুড়ির সাথে যাবে কোন অচেনা শহরে কোন এক অচেনা শহরে ঘুম ভাঙে সোনালী আলোর রথে ভেসে আসে সুদূরের ডাক কোন এক অশান্ত বাতাসে ডানা মেলে অপূর্ন স্মৃতির...

অজান্তে

কিসের এত কান্না তোমার ঐ দুটি চোখে সারাটা হৃদয় জুড়ে কিসের এই নিশ্চুপ থাকা ।।। তুমি জানো না তোমার রাতের আকাশে তারা সব ঝলমল আশা তুমি বোঝ না কষ্ট পাই নিজের অজান্তে কিসের এত কষ্ট তোমার ঐ দুটি চোখে গোধূলীর রক্তিম আভা সারাটা দৃষ্টি জুড়ে ।।...

অদেখা স্বর্গ

এই ঘরে ফেরা নিজেকে ফিরে দেখা আয়নাতে কার মায়া আঁধারের আলো ছায়া আমার সাথে চলে তোমাকে নিয়ে একা অজানা যে আকাশে ওড়ে অদেখা কোন স্বর্গ আমার না পাওয়া তবু পথ দেখায় আশাতে হতাশা ভোলায় যতবার জন্মেছি তোমারই আশাতে ততবার আবার এই ফিরে চলা দুর থেকে দেখা আমার এ ভালোবাসা অজানা যে আকাশে...

অনেক দূর স্বপ্ন আমার

অনেক দূর স্বপ্ন আমার, অনেক দূর আমার চাওয়া হাতের কাছে তারার মতো, আমার করে তোমায় পাওয়া। তোমায় পেলে হয়ত আবার, নতুন গানের সুরটা পাব অনেক দূরের আকাশ পথে, তোমায় নিয়ে হারিয়ে যাব। হারিয়ে যাওয়ার মানেই হলো, নিজেকে আবার খুঁজে পাওয়া নিজের জন্য গান লিখেছি, নিজের জন্য তোমায়...

অনেক রাত্রি একা একা হাঁটছি

অনেক রাত্রি একা একা হাঁটছি একা একা চলছি কেউ নেই কেউ নেই পূর্ণিমা রাত্রি একা একা হাঁটছি একা একা চলছি সবাই ঘুমিয়ে তোমায় আমি ভুলবনা তোমার স্মৃতি মুছে ফেলবনা তোমায় আমি ভুলবনা যদিও বহু দূরে ।। সূর্য উঠবে কবে যে উঠবে পাখীরা ডাকবে তবুও পথ চলব।...

অন্ধ জীবন ক্ষুন্ন বিষন্ন মরন

অন্ধ জীবন ক্ষুন্ন বিষন্ন মরন স্নিগ্ধ বাগান তবু মাকাল ফলের ফলন বন্ধ ঠোঁটে না বোঝা কথার বলন দুর্বল পায়ে অহংকারি চলন চোখের দৃষ্টি যদি জানালার বাইরে নেই তোমার এই পথ যদি হয় অন্যের গড়া অন্ধ এ জীবন ভঙ্গুর ঘরে তোমার সুখের যাপন ছিন্ন বস্ত্র তোমার গায়ের পরন চলার পথে তোমার হাজার...

অপ্সরী

আমি কার ভুলে ছিলাম ভুলে এক রক্ত মাংসের অপ্সরী খুঁজে ফিরে অপূর্নতায় পূর্নতা জীবনের সাথে লুকোচুরি মনে পড়ে তুমি ছিলে পাশে এখনও যেভাবে আছো জড়িয়ে তবু নিরবে তোমায় স্মৃতিচারণ সমস্ত অস্তিত্ব জুড়ে তুমি এলে উৎসবে সাজবে নতুন আকাশ বাম পাশে ভাসবে অজানা অবাক উল্লাস তোমার ভেতর জন্ম...

অবশ অনুভূতির দেয়াল

তোমার জন্য পৃথিবী আজ নিয়েছে বিদায় তবু তোমার টুকরো ছায়ায় ডুবে আছে কত মিথ্যে আগুন অন্ধকারময় কত স্মৃতি কত সময় তোমার জন্য পৃথিবীতে আজকে ছুটির রোদ নিজের মাঝে তোমায় খোঁজা আকাশ নীলে তাকিয়ে থাকা তোমার জন্য পৃথিবী আজ নিয়েছে বিদায় মেঘাচ্ছন্ন ব্যস্ত ঢাকায় মানুষগুলো শূন্য চোখে...

অবাক ভালোবাসা

সব আলো নিভে যাক আঁধারে শুধু জেগে থাক ঐ দুরের তারারা সব শব্দ থেমে যাক নিস্তব্ধতায় শুধু জেগে থাক এই সাগর আমার পাশে সব বেদনা মুছে যাক স্থিরতায় হৃদয় ভরে যাক অস্তিত্বের আনন্দে হৃদয় গভীরে অবাক দৃষ্টিতে থমকে দাড়িয়েছে মহাকাল এখানে শুভ্র বালুর সৈকতে এলোমেলো বাতাসে গিটার হাতে...

অবাক হৃদয় নিয়ে থমকে আছি আমি

অবাক হৃদয় নিয়ে থমকে আছি আমি অনন্ত বিরহ তীরে ফেরারী ছায়া পড়েছে সাজানো স্বপ্ন জুড়ে অসময়ে শুনি আমি সময়ের দীর্ঘ নিঃশ্বাস বাঁধ ভাঙা ভালোবাসা ভেঙে গেছে তিলে তিলে গড়া সব বিশ্বাস এক বুক তৃষ্ণা নিয়ে জানি আমার বসবাস বিষন্ন প্রান্তরে বহুদূরে ভেসে গেছে বিশ্বাস ভরা উল্লাস ফেলে আসা...

অভিমান

স্বগত লগ্নে জমাট স্তব্ধতা ঘুম পেলে ক্ষতি কি তোমার চোখে গভীর বিশ্বাস হারালে ক্ষতি কি কেবলই অভিমানের রাত তবে কেন প্রতীক্ষা ক্ষয়া চোখে ভুলের বিন্নাস নিভু স্বপ্ন বাতিটা আমাকে তুমি জাগিয়ে একা কেন ঘুমালে আমাকে এড়িয়ে তোমার আকাশে কবে ফুল ঝরেছে বলো তোমার চারুগৃহ কেন যে খুলে...

অভিমান

অভিমান না করিনি অনুযোগ কিছুই করিনি আনুরোধ শুধু যে তোমায় যন্ত্রনা আর দিওনা আজ আমার আকাশ মেঘে ডাকা বিশীতল দুচোখ একেলা মিলনের মোহনায় বুঝি আর দেখা হবেনা আবেগের নদী স্রোতহীনা বুকে তাই ধূসর বেদনা স্মরণের আঙ্গিনায় স্মৃতি আর ফিরে আসেনা...

অলস দুপুরে উঠোন জুড়ে

অলস দুপুরে উঠোন জুড়ে কৃষ্ণচূড়ার ছায়ায় মন আমার ওগো মন আমার কোথায় জানি হারায় কোথায় জানি হারায়।। অজানা কত গল্প কথায় দাদুর কাছে শুনে ।। রূপ কথাআরই রাজ্যে সবই হারাতাম মনে মনে। পুরানো সব গানের কথা ভীর করে মনে ।। কত দিনের কত ছবি রয়েছে গাথা প্রাণে।...

অসীম শুন্যতার মাঝে

অসীম শুন্যতার মাঝে অসীম শুন্যতার মাঝে কে বাঁজাই আর কে বাঁজে কেউ না কেউ না নিজে নিজে- সাধের বনভূমি ছাই, ঝরণারা কেঁদে বলে কি যে এই আর নেই তো সেই আমি প্রিয় আগুনে ভিঁজে ভিঁজে- হৃদয়ের কলিগুলো ফোটেনা মেলিনাই সবটুকু চোখ বেদনার ক্ষত আরো গাঢ় হয় মধুর গভীর রাত ভাঙল সাঝে- তাই তো...

আঁধারে ছিলাম এই আমি

আঁধারে ছিলাম এই আমি আঁধারে এখনো আছি আমার আছো একটা তুমি তোমার মাঝেই বাঁচি আমি ভালোবাসি আঁধার আর ভালোবাসি তোমায় বহুদিনের দূরে থাকায় হয়তো অচেনা আমি বিষাদ ভেজা আবেগ নিয়ে তাই কি ভালোবাসোনি তবু আছো আমার স্বপনে স্বপ্নময়ী হয়ে কখনো যদি ডাকো আমায় অভিমানী ভুলের শেষে জেনে রেখো...

আঁধারে তুমি পূর্ণিমা চাঁদ

আঁধারে তুমি পূর্ণিমা চাঁদ হৃদয়ে আমার সাধনার গোলাপ চোখে উষ্ণতা তোমার আবেশ জাগায় অধরে কোমলতা যেন মনকে রাঙায় জীবন জাগানো আলো দিয়েছ তুমি আঁধারে তুমি পূর্ণিমা চাঁদ হৃদয়ে আমার সাধনার গোলাপ আমি চাতক তুমি তাই বৃষ্টি ধারা আমি মরু পথিক তুমি ঝর্না ধারা আমার জীবনে তুমি প্রথম...

আকশনীলা তুমি বল কিভাবে

আকশনীলা তুমি বল কিভাবে আমার শূন্য মনে সুখ ছড়াবে এমন করে কি তবে ভেবেছ আগে ভালবাসা দিয়ে শুধু ভুল ভাংগাবে কথা দাও কথা দাও কথা দাও বুঝবে আমায় কথা দাও কথা দাও আজীবন আমারি রবে খুজতে যদি আজ খুজতে বুঝতে , তবে এমন বুঝতে জীবনে কত দুঃখ লুকানো তুমি তা জানতে চেয়েওনা কত সে নির্মম...
পাতা 1/2012345...1020...শেষ »