সখী তারে নিষেধ করে দে বারণ করে দে

সখী তারে নিষেধ করে দে বারণ করে দে
ও সে আর যেন না বাজায় বাঁশরি রাধা নাম ধরে
তার বিষম বাঁশির সুরে
মরি শুধু জ্বলে-পুড়ে
আগুন লেগেছে অন্তরে।

আমি যখন যমুনাতে জল ভরিতে যাই
বাঁশি বলে কদম তলে প্রাণ রাই
আসিতে ঘরের পানে
বাঁশিতে পিছনে টানে
এ জ্বালা সহিবো কী করে।।

গহন রাতে বিজন বনে বসে বিরলে
শ্যাম কালিয়া বাজায় বাঁশি রাধা রাধা বলে
ও সে বোঝে না চপলমতি
শ্রীমতি যে কুলবতী
শাশুড়ি-ননদী আছে ঘরে।।

ঘরে জ্বালায় শাশুড়ি আর বাহিরে বাঁশরি
হয়ে কুলবালা এতো জ্বালা কেমনে পাশরি
ভাবে নকুল যে দিবা-রাত
কেন সে গোকুল নাথ
জাত-কুল নিলো যে হরে।।

—————
নকুল কুমার বিশ্বাস
অ্যালবাম: ওকে ধর্‌
রচনা- ১২.০৪.৮৭

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *