দেল-দরিয়ায় ভাসে রসের তরী।।
তরীর কেবা চড়নদার
কেবা হয় কাণ্ডার
সাধুর দ্বারে জানিতে তাই বাঞ্ছা করি।।
গয়া, গঙ্গা, মধুর বৃন্দাবন
তিন ঘাটে পাহারা তিনজন
চড়ে মন-পবনের নায়, কেবা ঘাটে ঘাটে নেয়
সদা বসে এই ভাবনা ভেবে মারি।।

উলহিয়াত, রবুবিয়াত, আধুদিয়াতে
ত্ৰিভুবন এলাম ঘুরিয়া কে ছিল সাথে
যবে ছিলাম অচেতন, এসে কে করে চেতন
অন্ধকারে আলো দিল সে কোন নূরী।

যদি হ’ত এ ভেদ নিরূপণ
গুরু-অন্ত হইত। মোর মন
নিগুঢ় আত্মতত্ত্ব জেনে, মজিয়া চরণে
মধুরে করিত মহিন দাসীগিরি।।

———
মহিন শাহ

Share This