জাতির নামে বজ্জাতি সব জাতি কি নিবা সঙ্গে করে।।
সাদা কিবা কালো বরণ, জাত দেখছো কি এক নজরে।।

হুকোর জল আর ভাতের হাঁড়ি এই জেনেছে জাতির জান,
লম্বা কি সে গোল আকৃতি কি করেছ তার প্রমাণ,
অদৃশ্য যা যায় না দেখা,
কিসে হয় তার লেখাজোখা,
জাতি-জুয়াড়ি খেলছে। যারা কি প্রমাণ করিল তারে।।

জগন্নাথে দেখা যেয়ে জাতির আছে কি বিচার,
ব্ৰাহ্মণ-চণ্ডাল, চামার-মুচি সবে দেখি একাকার,
চণ্ডালের অন্ন ব্ৰাহ্মণ খেল
তাইরি প্ৰভু দেখা দিল,
শাস্ত্ৰমতে শোনা গেল জাতি থাকে কি প্রকারে।।

মক্কা-মন্দির গির্জা ঘরে জাতির আছে কি প্ৰমাণ,
আরফাতের মাঠে জাত বলে কে কারে শুধান,
ঐশী প্রেমে হয়ে মত্ত,
সবে ভাবে একাত্ম,
ছোট মনের কাজ নয়তো জাত-অজাত যে সঙ্গ করে।।

আসবার সময় কি জাত ছিলে কি জাত হবা মলে,
ছেঁউড়িয়ার সাঁই দরবেশ লালন এই কথা পদে বলে,
খোদা বকশ বলে আমার নাই জাত,
দরবেশ শুকচাঁদ শাহ দেখিয়েছে পথ,
নাইকো মোটে বাদ-বিসম্বাদ আছি পবনকে একসঙ্গে করে।।

———-
খোদা বকশ শাহ

Share This