ক্ষ্যাপারে পাগলরে তোর আপন ঘরে বেঁধেছে গোলমাল

ক্ষ্যাপারে পাগলরে তোর আপন ঘরে বেঁধেছে গোলমাল,
এবার পরের ঘরে গেছেরে তোর নিজের ঘরের মালামাল।।
তোর বসত করা ঘরের মধ্যে ছয়জন ফেরে তোর বিরুদ্ধে
একাকী তাহাদের যুদ্ধে পারবি নারে বেসামাল।।

দশজন তোর বাহির দরজায়, ছয়জন তোর ভিতর কামরায়
বিষয়ের বিষ-দাঁতে কামড়ায় মোহের মহাকাল,
ওঝা আছে পরতন্ত্রে, বিষ চলে তার চালান মন্ত্রে
ষড় রিপুর ষড়যন্ত্রে সব করে দিলো পয়মাল।।

বাহিরে বীরত্ব ভারি, ভিতরে প্রবাল অরি
তোর দিয়ে নাকে দড়ি ঘুরায় চিরকাল,
বিষয় বিষে হয়ে মত্ত, জাগলোনা আর আত্মতত্ত্ব
ভুলে গেলি পরস্বার্থ কেবল স্বার্থের ঝামাল।।

টাকা পয়সা সিন্ধুক ভরা পার হইতে তোর নাই এক কড়া
ঘাটের মাঝি ভীষণ কড়া দূরন্ত ভয়াল,
ধূলায় দিয়ে গড়াগড়ি কুড়ায়ে লও পায়ের কড়ি
শ্রীগুরুর চরণে পড়ি নিজেরে করো সামাল।।

অজানা এই সংসারপুরে, পথ না চিনে মরলি ঘুরে
পড়ে গেছিস অনেক দূরে, এলো সন্ধ্যা কাল,
মোহে মুগ্ধমহীতলে দগ্ধচিত্তে বিজয় বলে
বাস করলি বাঁশ গাছের তলে ত্যাগ করে কৃষ্ণ তমালা

—————
বিজয় সরকার

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *