মজার আয়না

মজার আয়না শরৎচন্দ্র একবার সবান্ধব নিমন্ত্রিত হয়ে গেছেন চন্দননগরের হরিহর শেঠের বাড়িতে। হরিহর ছিলেন ধনী, সদাশয়, মহানুভব ব্যক্তি। তাঁর বাড়ি… Read more মজার আয়না

ঘড়ি

ঘড়ি শরৎচন্দ্র একবার হোয়াইট এ ওয়ে লোডেল কোম্পানীর সেলে তিন টাকা পনের আনায় একটি হাত ঘড়ি কিনেছিলেন। কেনার পর ঘড়িটা… Read more ঘড়ি

কেমন ঠকালাম

কেমন ঠকালাম শরৎচন্দ্র তার ভাগ্না-ভাগ্নীদের সঙ্গে খুব মজা করতেন। একবার তিনি তাঁর স্নেহের ভাগ্নী পারুললতাকে মজা করে বলেন, এই পারু,… Read more কেমন ঠকালাম

বিপরীতগামী ট্রেন

বিপরীতগামী ট্রেন শরৎচন্দ্র যখন পেগুতে উকিল মিঃ চট্টোপাধ্যায়ের বাড়িতে ছিলেন তখন পেগু একজিকিউটিভ ইঞ্জিনিয়ার অফিসে দু-তিন মাস অস্থায়ীভাবে চাকুরি করেন।… Read more বিপরীতগামী ট্রেন

সভাপতি

সভাপতি শরৎচন্দ্ৰ কোনো সাহিত্যসভায় গিয়ে গভীরমুখে বসে থাকতে পারতেন না। ভক্তবৃন্দের আমন্ত্রণে তাঁকে প্রায়ই বিভিন্ন অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করতে হত। তিনি… Read more সভাপতি

মামা না জ্যাঠা

মামা না জ্যাঠা শরৎচন্দ্র একদিন বন্ধু-আত্মীয়দের সঙ্গে সদর ঘরে গল্পগুজব করছেন। কথার মাঝে সুখটান দিচ্ছেন্ন গড়গড়ায়। হঠাৎ তিনি রাধারানী দেবীকে… Read more মামা না জ্যাঠা

পুরাতন লাঠি

পুরাতন লাঠি কবিশেখর কালিদাস রায়ের আমন্ত্রণে শরৎচন্দ্ৰ মাঝেমাঝেই রবিবার সন্ধ্যায়। রাসচক্র-এর সাহিত্যসভায় যোগ দিতেন। তার হাতে থাকতো একটা অত্যস্ত পুরাতন… Read more পুরাতন লাঠি

মঠের বেয়াড়া নিয়ম

মঠের বেয়াড়া নিয়ম শরৎচন্দ্র একবার রেঙ্গুনে রামকৃষ্ণ মিশনের স্বামীজী স্বামী রামকৃষ্ণানন্দ ওরফে শশী মহারাজের সঙ্গে দেখা করতে যান। কথাবার্তার মধ্যে… Read more মঠের বেয়াড়া নিয়ম