শিল্পীর নাম

আমার চাচাতো ভাই আবদুল। ঘটনাটি ২০০৩ সালের। তখন সে ক্লাস সেভেনের থার্ড ইয়ারে পড়ত! অর্থাৎ দুই দুই বছর বার্ষিক পরীক্ষায় ফেল করায় তাকে এ নিয়ে তিন বছর ক্লাস সেভেনে পড়তে হয়েছিল। পড়ালেখায় কাঁচা হলেও একদিকে সে ছিল খুবই পাকা। তা হলো গান শোনা। ক্লাস ফাঁকি দিয়ে এসে ও গান শুনত। ২০০৩-এর শেষের দিকে তার বার্ষিক পরীক্ষা চলছিল। একদিন বিকেলে পরীক্ষা দিয়ে এসে খুব হাসিমুখে আমাদের বলল, ‘আমার আজকের পরীক্ষায় পাঁচজন শিল্পীর নাম লিখতে বলা হয়েছে। আমিও দেরি না করে আসিফ, মনির খান… এদের নাম দিয়েছি। নিশ্চিত, এ প্রশ্নে ১ মার্কও কম পাব না। ‘আমরা সবাই থ! ভাবতে লাগলাম, পরীক্ষায় কি কণ্ঠশিল্পীর নাম আসে? আমি এক সেকেন্ডও দেরি না করে প্রশ্নটা নিলাম। চোখ বোলাতেই দেখলাম, সে যে প্রশ্নের উত্তরে কণ্ঠশিল্পীদের নাম দিয়েছিল, সে প্রশ্নটা ছিল এ রকম, ‘পাঁচটি ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্পের নাম লেখো।’

জাহিদুল ইসলাম খান
গন্ধব্যপুর, হিরামন বাজার, লক্ষ্মীপুর।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *