মাতাল

গোল তো হয় ক্রিকেট খেলায়

দুই মাতাল গ্যালারিতে বসে ক্রিকেট ম্যাচ দেখছে। এমন সময় ব্যাটসম্যান ছক্কা হাঁকালেন। ১ম মাতাল: ওহ! কী দারুণ একটা গোল দিল! ২য় মাতাল: আরে বুদ্ধু, গোল কি এই খেলায় হয় নাকি? গোল তো হয় ক্রিকেট খেলায়!

নাম মনে পড়ছে না

মদ্য পান করতে করতে চিৎকার করে কাঁদছিল জন। একজন জিজ্ঞেস করল, ‘কী, কাঁদছ কেন?’ জন বলল, ‘যে মেয়েটাকে ভোলার জন্য পান করছি, তার নাম মনে পড়ছে না!’

এত জোরে কেউ গাড়ি চালায়

ট্যাক্সিতে উঠেছে তিন মাতাল। এক মাতাল বলল, এই, মালিবাগ চলো। ট্যাক্সির চালক বুঝতে পারছিল, লোকগুলো মাতাল। তার মাথায় একটা দুষ্টু বুদ্ধি খেলে গেল। চালক কিছুক্ষণ চুপচাপ বসে থেকে বলল, চলে এসেছি স্যার, নামেন। আর ভাড়া দেন। প্রথম মাতাল ভাড়া মিটিয়ে নেমে গেল। দ্বিতীয়জনও চুপচাপ নেমে গেল। তৃতীয়জন গাড়ি থেকে না নেমে রাগী চোখে তাকিয়ে থাকল […]

ঝাপসা দেখা যাচ্ছে

দুই মাতাল কথা বলছে। প্রথম মাতাল: ওরে, তুই আর খাইস না। দ্বিতীয় মাতাল: কেন? প্রথম মাতাল: এখনই তোকে ঝাপসা দেখা যাচ্ছে। আরেকটু খেলে উধাও হয়ে যাবি!

চালককে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ

এক মাতালকে ধরে এনেছেন থানার হাবিলদার। ইন্সপেক্টর: এটাকে নিয়ে এসেছ কেন? হাবিলদার: স্যার, সে রাত দুইটার সময় একটা ট্যাক্সির সামনে দাঁড়িয়ে চালককে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করছিল। ইন্সপেক্টর: চালককে নিয়ে এসো। হাবিলদার: এটাই তো সমস্যা স্যার। ট্যাক্সির ভেতরে কোনো চালক ছিল না!

বক্তৃতা

নববর্ষের রাত। গভীর রাত পর্যন্ত বন্ধুদের সঙ্গে আড্ডা দিয়ে মাতাল অবস্থায় বাড়ি ফিরছিল উইলিয়াম। মাঝরাস্তায় পুলিশ তার পথ রোধ করে দাঁড়াল। পুলিশ: কোথায় যাচ্ছেন? উইলিয়াম: বক্তৃতা শুনতে। পুলিশ: এত রাতে আপনাকে বক্তৃতা শোনাতে কে বসে আছে, শুনি? উইলিয়াম: আমার স্ত্রী।

সুটকেস খুলে বই পড়া

নববর্ষের রাতে মাতাল হয়ে বাড়ি ফিরেছে জ্যাক। বাড়ি ফিরেই বউয়ের ভয়ে একটা বই খুলে পড়তে শুরু করল সে। খানিক বাদে তার স্ত্রী এল ঘরে। বলল, ‘আবারও মাতাল হয়ে এসেছ, তাই না?’ জ্যাক: কই? না তো! স্ত্রী: তাহলে সুটকেস খুলে কী এত বকবক করছ?

একটু ধাক্কা দেবেন

গভীর রাত। প্রচণ্ড বৃষ্টি হচ্ছে। কেউ একজন চিৎকার করে বলছে, ‘এই যে ভাই, কেউ আছেন? একটু ধাক্কা দেবেন?’ চিৎকার শুনে ঘুম ভেঙে গেল মিসেস মলির। মলি তাঁর স্বামী রফিক সাহেবকে ধাক্কা দিয়ে বললেন, ‘এই যে, শুনছো, কে যেন খুব বিপদে পড়েছে!’ ঘুমাতুর কণ্ঠে বললেন রফিক, ‘আহ্! ঘুমাও তো! লোকটার কণ্ঠ শুনে মাতাল মনে হচ্ছে।’ অভিমানের […]

মাতাল ছিলাম না

গদা: বিশ্বাস কর দোস্ত, সেই রাতে আমি অতটা মাতাল ছিলাম না। পদা: মাতাল ছিলি না মানে? তুই তোর ভাবীকে পাশের রুমে নিয়ে গিয়ে জাপটে ধরে চুমু খেলি… গদা: তাইতো বললাম, আমি আসলে সেদিন একটুও মাতাল ছিলাম না!

সোডা খাই না

—কিছু পান করবেন? —না, ধন্যবাদ। —চা? —না, চা খাই না। —কফি? —কফিও খাই না। —সোডাসহ হুইস্কি? —সোডা খাই না।

কেন?

রুশ রস ঘটনা ১. —এত মদ খাও কেন? —খাব না কেন! বেতন কম। কত দিন ধরে অনুরোধ করছি বাড়ানোর! বাড়িয়ে দিন, এক ফোঁটাও মুখে নেব না। ঘটনা ২. —কিন্তু এখনো কেন মদ খাও? —খাব না কেন! আর কত ভবঘুরের মতো জীবন যাপন করব? ফ্ল্যাট নেই। কত অনুরোধ করেছি! থাকার জায়গার বন্দোবস্ত করে দিন, এ জীবনে […]

লিফট আসছে

দুই মাতাল ইতালীয় পুলিশ রেললাইন ধরে গড়িয়ে গড়িয়ে এগিয়ে যাচ্ছে। —এত লম্বা সিঁড়ি! উঠতে উঠতে ক্লান্ত হয়ে গেলাম। —আরেকটু অপেক্ষা করো। ওই দেখো, লিফট আসছে।

বুঝেছি তো

প্রচণ্ড মদ্যপানের পর কোভালস্কি বাড়ি ফিরল গভীর রাতে। ঘরে ঢুকতেই দেয়াল ঘড়ি বেজে উঠল ঢং-ঢং-ঢং। বিরক্তির সুরে সে বলল: —বুঝেছি তো, বাবা, রাত একটা বাজে। তাই বলে সেটা তিনবার জানান দিতে হবে?

কোন সারিতে

প্রচণ্ড তর্ক শুরু হয়েছে দুই মাতালের মধ্যে। একজন বলছে, আকাশে দুটো চাঁদ দেখা যাচ্ছে। অন্যজন বলছে, তিনটে। আরেক মাতাল যাচ্ছিল পাশ দিয়ে। তাকে ডেকে তারা বলল, আচ্ছা, বলুন তো ভাই, আকাশে কয়টা চাঁদ দেখা যাচ্ছে? আকাশের দিকে তাকাল সে, তারপর বলল, কোন সারিতে?

ট্যাক্সি ড্রাইভার ছিল না

বিচারক : লোকটির বিরুদ্ধে কী কী অভিযোগ? পুলিশ : মদে চুর হয়ে খোলা রাস্তায় মাতলামি এবং একটি ট্যাক্সি ড্রাইভারের সঙ্গে বিশ্রী ভাষায় তর্ক করছিল। বিচারক : ট্যাক্সি ড্রাইভার কোথায় নিয়ে আস। পুলিশ : ওটাই তো অভিযোগ। সেখানে কোনো ট্যাক্সি ড্রাইভার ছিল না।

খোড়া হয়ে গেছি

নাইট-শো সিনেমা দেখে বাড়ি ফিরছে এক লোক। হঠাৎ দেখল, তার আগে একটা মাতাল টলতে-টলতে যাচ্ছে। তার একটা পা ফুটপাতের উপরে, একটা পা রাস্তায়। লোকটি এগিয়ে গিয়ে মাতালটাকে রাস্তায় নামিয়ে দিল। মাতাল তখন সোজা হয়ে হাঁটতে হাঁটতে বলল, আমি ভেবেছিলাম আমি বুঝি খোড়া হয়ে গেছি।

মুরগিটাকেই জিজ্ঞেস করছিলাম

আবু তালেব মোটা মানুষ। একদিন বাজার থেকে মুরগি নিয়ে ফিরছিল। পথে এক মাতাল বলল, ‘এই খাসিটাকে নিয়ে কোথায় চললে?’ আবু তালেব রেগে বলল, ‘সর! মাতাল কোথাকার! এইটা মুরগি, খাসি না।’ মাতাল জবাব দিল, ‘আমি মুরগিটাকেই জিজ্ঞেস করছিলাম!’

রাতে লেকচার দেবে বউ

জ্যামাইকার হেনরির দিনকাল বেশ খারাপ যাচ্ছিল। রাত দুইটায় মদ খেয়ে বদ্ধমাতাল সে। মড়ার ওপর খাঁড়ার ঘা, ঘরে ফেরার পথে একটা ডাস্টবিনে উল্টে পড়ে গেল সে। পুলিশ এসে ক্যাঁক করে ধরল তাকে, ‘বিষয়টা কী, এত রাতে এমন মাতলামি কিসের, যাচ্ছিলে কোথায়, শুনি?’ ‘যাব আর কোথায়! লেকচার শুনতে যাচ্ছিলাম, জনাব।’ পুলিশ তো সব শুনে মহাখাপ্পা, ‘পাগল পেয়েছ! […]

বাড়ির দরজাটা সামনে এলে

প্রথম মাতাল : আরে দেখেছিস, আমাদের চারপাশে শহরটা কী রকম শাইঁশাঁই করে ঘুরছে। দ্বিতীয় মাতাল : দেখেছি বৈকি, তাই তো এক জায়গায় দাঁড়িয়ে আছি। বাড়ির দরজাটা সামনে এলেই টুক করে ঢুকে পড়ব।

Page 1 of 3123