বেকুব কে

এক নোয়াখাইল্লা ভুলবশত অন্য এক নাম্বারে ১০০টাকা রিচার্জ করে ফেলল , যখন সে নিজের ভূল বুঝতে পারল তখন সে ওই নম্বরে অনেকবার ফোন করল…
কিন্তু ওই নম্বরের লোকটা ছিল বরিশালের, (বেশ চতুর) – মাগনা রিচার্জ পেয়ে সে তো মহা খুশী . . তাই সে অন্য কারু বোকামী বুঝতে পেরে অচেনা নম্বরের ফোন আর ধরলনা।
নোয়াখাইল্লা ফোনের পর ফোন দিতেসে কিন্তু হ্যাতে ধরেনা।
তখন নোয়াখাইল্লা বরিশাইল্লারে মেসেজ দিল :
“লস্কর-ই-তৈয়বায় বাংলাদেশ শাখায় আপনাকে স্বাগতম !
এখন থেকে আপনি আমাদের ৪২০ নং সদস্য।
আপনি আমাদের রিচার্জ স্বীকার করে আজ থেকে নব্য তালেবানের সদস্য হয়ে গেছেন ! আল্লাহ আপনার শহীদী মৃত্যু কবুল করুন।
জনাব, সতর্ক থাকবেন –
দেশের ডিবি এজেন্টরা এবং বিদেশ থেকেও আমাদের উপর কড়া নজর রাখছে, আপনার ফোন খুব সাবধানে ব্যবহার করবেন, কোন অচেনা নম্বরের কারো সাথে কথা বলবেন না।
তবে আমার নম্বরটি সেভ করুন –
অতি শীঘ্রই পরবর্তী নির্দেশনা আসতেসে।…..
“নারায়ে তাকবীর . . .আল্লাহু আকবার”
ঘাবড়ে গিয়ে বরিশাইল্লাডা সাথে সাথে নোয়াখাইল্লারে ফোন করে বলল :
“মোরে সদস্য বানাইতে আমনেরে কইছে কেডা? মোরে বেকুব পাইছ? মুইকি তোমার ধারে টেহা চাইছি, না মোর চোইদ্দ গুষ্টিতে কেউ তোমাগোর সদস্য আছে ! ”
নোয়াখাইল্লা তখন বলল –
“জনাব, ইসলামে জবরদস্তি বলে কিচ্ছু নাই। আপনি যেহেতু না’রাজ তাহলে আমাদের রিচার্জ এর টাকা টা ফিরিয়ে দিন, সদস্যপদ অটোমেটিক বাতিল হয়ে যাবে ! ”
[কল শেষ হবার ৫ মিনিটের মধ্যে নোয়াখাইল্লার মোবাইলে রিচার্জ ফেরত আসল . . .]
নোয়াখাইল্লা এবার আবার ম্যাসেজ পাঠালো
“ও মনু, বেকুব কি মুই না তুমি?

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *