১.৪ ধাত্ববয়ব

ধাত্ববয়ব সংস্কৃত ব্যাকরণ থেকে গৃহীত পাঁচটি প্রত্যয়ের একটি। বিদ্যাসাগর প্রণীত ব্যাকরণ কৌমুদীতে বলা হয়েছে- ধাতুর উত্তর ই (ণিচ), স (সন্) প্রভৃতি এবং প্রাতিপাদিকের উত্তর য, কাম্য প্রভৃতি যে সমস্ত প্রত্যয় হয়, তাহাদিগকে ধাত্ববয়ব (Parts of roots) বলে। এই বিচারে যে সকল...

১.৩ স্ত্রী-প্রত্যয়

স্ত্রী-প্রত্যয় বাংলা ব্যকরণে পাঁচটি প্রত্যয়ের একটি। ব্যাকরণে বর্ণিত স্ত্রীবাচক শব্দ উৎপন্ন হওয়ার ক্ষেত্রে যে সকল প্রত্যয় ক্রিয়ামূলের শেষে যুক্ত হয়, এদেরকে স্ত্রী-প্রত্যয় বলা হয়। বিদ্যাসাগর প্রণীত ব্যাকরণ কৌমুদী এর ইংরেজি সমার্থ শব্দ হিসাবে বলা হয়েছে- feminine Affix।...

১.২ তদ্ধিত প্রত্যয়

তদ্ধিত প্রত্যয় আক্ষরিক অর্থ -তাহার জন্য হিতকর। কিন্তু ব্যাকরণে এটি একটি প্রত্যয় হিসাবে ব্যবহৃত হয়। এই কারণে, এর পূর্ণাঙ্গ নাম -তদ্ধিত প্রত্যয়। বাংলা ব্যকরণে পাঁচটি প্রত্যয়ের একটি হলো তদ্ধিত প্রত্যয়। যে প্রত্যয় শব্দমূলের শেষে যুক্ত হয়ে নূতন শব্দ তৈরি করে, তাকে...

১.১ কৃৎপ্রত্যয়

কৃৎপ্রত্যয় সংস্কৃত কৃৎপ্রত্যয়>বাংলা কৃৎপ্রত্যয়। বাংলা ব্যকরণে পাঁচটি প্রত্যয় -এর একটি। যে প্রত্যয় ক্রিয়ামূলের শেষে যুক্ত হয়ে নূতন শব্দ তৈরি করে, তাকে কৃৎপ্রত্যয় বলে। বিদ্যাসাগর প্রণীত ব্যাকরণ কৌমুদী -তে এর ইংরেজি সমার্থ শব্দ হিসাবে বলা হয়েছে-primary suffix। যেমন—...

১. সংস্কৃত প্রত্যয়

সংস্কৃত প্রত্যয় এই প্রত্যয়কে মোট পাঁচটি ভাগে ভাগ করা হয়ে থাকে। প্রত্যয় প্রধানত পাঁচ প্রকার। এ গুলি হলো— ১. কৃৎপ্রত্যয় (Primary suffix) ২. তদ্ধিত প্রত্যয় (Secondary suffix) ৩. স্ত্রী-প্রত্যয় (faminine suffix) ৪. ধাত্ববয়ব (Parts of roots) ৫. বিভক্তি...

৩. বিদেশী প্রত্যয়

বিদেশী প্রত্যয় যে সকল সংস্কৃত ও দেশী প্রত্যয় ছাড়া সকল প্রত্যয়কে বিদেশী প্রত্যয় হিসাবে বিবেচনা করা হয়। নিচে এই জাতীয় প্রত্যয়ের তালিকা তুলে ধরা হলো। দার ফার্স তদ্ধিত প্রত্যয়। ফার্সি دار দার (ফার্সি প্রত্যয়)>বাংলা দার। বিভিন্ন ভাব বা অবস্থা প্রকাশে এই প্রত্যয় শব্দের...

২. বাংলা প্রত্যয়

বাংলা প্রত্যয় যে সকল দেশীয় প্রত্যয় ক্রিয়ামূল ও শব্দমূলের সাথে যুক্ত হয়ে নূতন পদ সৃষ্টি করে। নিচে এই প্রত্যয়ের তালিকা তুলে ধরা হলো। আনো এই প্রত্যয় ক্রিয়ামূলের সাথে যুক্ত হয়ে ভাববাচক বিশেষ্য তৈরি করে। যেমন– অংশ্ (ভাগ করা) + আনো=অংশানো ই তদ্ধিত প্রত্যয়। এই প্রত্যয় শব্দের...

৬. অধিকরণ কারক

৬. অধিকরণ কারক ক্রিয়া সম্পাদনের কাল এবং আধারকে (সময় এবং স্থানকে) অধিকরণ কারক বলে। ক্রিয়াকে ‘কোথায়/ কখন/ কী বিষয়ে’ দিয়ে প্রশ্ন করলে যে উত্তর পাওয়া যায়, তাই অধিকরণ কারক। উদাহরণ- পুকুরে মাছ আছে। (কোথায় আছে? পুকুরে)         : অধিকরণ কারকে সপ্তমী বিভক্তি বনে বাঘ আছে।...

৫. অপাদান কারক

৫. অপাদান কারক যা থেকে কোন কিছু গৃহীত, বিচ্যুত, জাত, বিরত, আরম্ভ, দূরীভূত, রক্ষিত, ভীত হয়, তাকে অপাদান কারক বলে। অর্থাৎ, অপাদান কারক থেকে কোন কিছু বের হওয়া বোঝায়। ‘কি হতে বের হল’ প্রশ্নের উত্তরই অপাদান কারক। উদাহরণ- গাছ থেকে পাতা পড়ে। (কি হতে বের হল/ পড়ল? গাছ থেকে):...