ক্ষেত্ৰগোপাল চট্টোপাধ্যায়

ক্ষেত্ৰগোপাল চট্টোপাধ্যায় (১৫.১২.১৯১৫ – ১০.৮.১৯৭৯) লেগো-বাঁকুড়া। অগ্নিমন্ত্রে দীক্ষিত পিতা ক্ষিতীশচন্দ্র ব্রিটিশ পুলিশের চোখে ‘হলুদবাড়ীর ডাকাত’, বাঁকুড়া সম্মিলনীর প্রতিষ্ঠাতা-সম্পাদক এবং কোতুলপুর হাইস্কুল ও বাঁকুড়া হিন্দুস্কুলের প্রধান শিক্ষক ছিলেন। মেধাবী ছাত্র। ১৯৩২ খ্রী. বাঁকুড়া হিন্দু স্কুল থেকে ম্যাট্রিক পরীক্ষায় প্রথম স্থান অধিকার করেন। কলিকাতার রিপন কলেজে (বর্তমান সুরেন্দ্রনাথ কলেজ) আইএস-সি পড়ার সময় রাজনীতি-সচেতন হয়ে ওঠেন। বাঁকুড়ার সাম্যবাদী আন্দোলনে তার বিশেষ ভূমিকা ছিল। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধকালে সাহায্যপ্ৰাথী ইংরেজ লাটসাহেবের মিটিং-এ ছাত্র মিছিল নিয়ে শ্লোগান দেন-‘না এক ভাই, না এক পাই’। এই কারণে দণ্ডিত হয়েছিলেন। ১৯৪২ খ্রী. ‘ভারত-ছাড়’ আন্দোলনে অংশগ্রহণ করে কারারুদ্ধ হন। অসুস্থতার কারণে ১৯৪৩ খ্ৰী মুক্তি পান। এরপর সক্রিয় রাজনীতিতে না থেকে শিক্ষকতা-কাজে ব্ৰতী হন। বিদ্যাসাগর কলেজে ইংরেজীর অধ্যাপক ছিলেন। ১৯৬৫ খ্রী. বিভাগীয় প্রধান পদ লাভ করেন। ভাল গান গাইতে ও লিখতে পারতেন। তাঁর রচিত ‘শোন মজুর কিষাণ দলী’, ‘ও ভোলামন বাংলার চাষীরে’, ‘জাগৃহি গণদেবতা’ প্রভৃতি গান এককালে মাঠে মিছিলে গাওয়া হত।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *