কল্যাণী ভট্টাচাৰ্য

কল্যাণী ভট্টাচাৰ্য (২৮৫-১৯০৭–১৬৮২-১৯৮৩) চট্টগ্রাম। খ্যাতনামা শিক্ষক বেণীমাধব দাস। পিতার কর্মস্থল কটকে জন্ম। সমাজসেবিকা ও বিপ্লবকামী। শিক্ষা বেথুন স্কুল ও কলেজে। দর্শনে অনার্স নিয়ে ১৯২৮ খ্ৰী. বি.এ. পাশ করেন। মহিলা রাজনৈতিক কামীদের সংস্থা ‘ছাত্রীসংঘ’ গঠনের অন্যতম উদ্যোক্তা, স্টুডেন্টস অ্যাসোসিয়েশনের সম্পাদক, বিপ্লবী দীনেশ মজুমদার ও সুভাষচন্দ্ৰ বসুর ঘনিষ্ঠ ছিলেন। ১৯৩০ খ্রী. আইন অমান্য আন্দোলনে যোগ দিয়ে কারাবরণ করেন। ১৯৩৩ খ্রীবৈপ্লবিক কাজকর্মের সঙ্গে যুক্ত থাকার অভিযোগে পুনরায় ধৃত হয়ে পাঁচ বছর আটক থাকেন। মুক্তির কিছুদিন পর নির্মলেন্দু ভট্টাচার্যের সঙ্গে তার বিবাহ হয়। ১৯৩৮ খ্রী. বন্ধুদের সঙ্গে মিলে মহিলাদের রাজনৈতিক পত্রিকা ‘মন্দিরা’ প্ৰকাশ করেন। এই সময় তার উদ্যোগে ‘ছাত্রীসংঘ’ পুনরুজজীবিত হয়। দুঃস্থ মেয়েদের জন্য মাতা সরলা দেবী প্রতিষ্ঠিত আশ্রম-’সরলা পুণ্যাশ্রমের সঙ্গে আজীবন যুক্ত ছিলেন। ১৯৪০ খ্রী. স্বামীর কর্মস্থল বোম্বাই চলে যান। সেখানে সিভিল লিবাটি আন্দোলনে অংশ নেন। ৮০টি মহিলা প্ৰতিষ্ঠান মিলিত হয়ে সেখানে যে যুক্ত সমিতি গঠিত হয় তাতে তাঁর বিশিষ্ট ভূমিকা ছিল। ১৯৪২ খ্রী. ‘ভারত-ছাড়’ আন্দোলনে যোগ দিয়ে কারাবরণ করেন। পঞ্চাশের মন্বন্তরের সময় তিনি সেবাব্রতে আত্মনিয়োগ করেন। তাঁর ‘জীবন অধ্যয়ন’ –গ্রন্থে তার নিজের ও তৎকালীন রাজনৈতিক ইতিহাসের বিবরণ আছে। বিপ্লবী বীণা দাস (ভৌমিক) তাঁর অনুজা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *