অচ্যুতচরণ চৌধুরী তত্ত্বনিধি

অচ্যুতচরণ চৌধুরী তত্ত্বনিধি (ইংরেজি: Choudhury, Achyut Charan) (জন্ম: ১৮৬৫, মৃত্যু: ১৯৫৩), বৃহত্তর সিলেটের একজন ইতিহাসবিদ ও বৈষ্ণব সাহিত্যের সুখ্যাত পন্ডিত, যিনি বিশেষ করে সিলেটের বিস্তৃত ইতিহাস রচনার মাধ্যমে সমাদৃত হোন। ১৯২০ দশকে প্রকাশিত তাঁর ১,৬৬৩ পৃষ্ঠার “শ্রীহট্টের ইতিবৃত্ত” নামক বিখ্যাত ইতিহাস গ্রন্থটি শ্রীহট্টের ইতিবৃত্ত (পূর্বাংশ) ও শ্রীহট্টের ইতিবৃত্ত (উত্তরাংশ) নামে দুইটি আলাদা আলাদা খণ্ডে প্রকাশিত হয়েছিল, যা আজও সিলেট ও প্রাচীন সিলেট অঞ্চলের (ভারতের করিমগঞ্জ অবধি বিস্তৃত) ইতিহাসের আলোচনায় অধিকাংশ ঐতিহাসিকগণ আকরগ্রন্থ হিসেবে ব্যবহার করে থাকেন। এছাড়াও তিনি ফোকলোরসহ বিভিন্ন ব্যক্তিত্বের জীবনী রচনা করে গেছেন। তিনি ১৩৬০ বঙ্গাব্দের (১৯৫৩ খ্রিস্টাব্দ) ১০ আশ্বিন ৮৮ বছর বয়সে মৃত্যুবরণ করেন।

অচ্যুতচরণ চৌধুরী ১২৭২ বঙ্গাব্দের (১৮৬৫ খ্রিস্টাব্দ) ২৩ মাঘ বিভাগপূর্ব তৎকালীন সিলেট জেলার জাফরগড় পরগনার মৈনা গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর বাবার নাম অদ্বৈতচরণ চৌধুরী।

শ্রীহট্টের ইতিবৃত্ত ছাড়াও তাঁর ছিল কমপক্ষে আরো ২০টি প্রকাশনা:
চৈতন্য চরিত (১৩১১ বঙ্গাব্দ)
রঘূনাথ দাস গোস্বামীর জীবনী (১৩০০ বঙ্গাব্দ)
গোপাল ভট্ট গোস্বামীর জীবনী (১৩০২ বঙ্গাব্দ)
নিতাই লীলা লহরী (১৩২০ বঙ্গাব্দ)
হরিদাস ঠাকুরের জীবনী (১৩০৩ বঙ্গাব্দ)
সীতা চরিত
ভক্ত নির্য্যাস (১২৯৯ বঙ্গাব্দ)
সাধু চরিত (১৩১৯ বঙ্গাব্দ)
চারু চরিত
শ্যামানন্দ চরিত
শ্রী গৌরাঙ্গের পূর্বাঞ্চল ভ্রমণ (১৩০৯ বঙ্গাব্দ)
চাঁদ সওদাগর
বিষ্ণুপ্রিয়ার বিবাহ
লাউড়িয়া কৃষদাস রচিত বাল্যলীলা সূত্রম বঙ্গানুবাদ
সাবাস ছবি (১৩১০ বঙ্গাব্দ)
অশ্রু কণা
শান্তি লতা
বিষাদিতা
রাজভক্তি ও মহাযুদ্ধ
শ্রী পাদ ঈশ্বরপুরী

তিনি সিলেট থেকে প্রকাশিত সাহিত্য পত্রিকা মাসিক শ্রীহট্ট দর্পন সম্পাদনা করতেন; আরো সম্পাদনা করতেন ‘কমলা’ নামের একটি সাহিত্যপত্রও। তাছাড়াও বিশিষ্ট গবেষণাধর্মী পত্রিকা সাহিত্য পরিষদ পত্রিকায় গবেষণাধর্মী লেখালেখী করতেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *