কুটিলার শ্রীরাধাকে ভর্ৎসনা-বাক্য

বলে, খুব জ্বলালি, খুব ঢলালি,
শরীরে অগাধ বিদ্যে ।
লোক হাসালি, কুল ভাসালি,
অকূল সাগর মধ্যে ॥ ৬৬
নাই, পসরা মাথায়, যাও লো কোথায়,
সঙ্গে সখী দুটি লো ।
এ নয়, বিকির বেলা, ডেকেছে কালা,
তাইতে বিকার ঘটিল ॥ ৬৭
বেঁধে মাথায় খোঁপা, তাতে চাঁপা
মুচ্‌কি মুচ্‌কি হাসি ।
বড় লাগায়ে চটক, মারিছে সাটক,
শুনেছে বুঝি বাঁশী ॥ ৬৮
ধ’রে সখীর গলা, করিছো শলা,
দাদাকে দিয়ে ফাঁকি ।
আজি, পাকাপাকি, মাখামাখি,
করিবো দাঁড়া ডাকি ॥ ৬৯
ক’রে ওষ্ঠ লাল, সেজেছে ভাল,
ত্যেজেছো কুললজ্জা ।
থাক্‌বি, গোবরে ছেয়ে, গোয়ালার মেয়ে,
এত কেন তোর সজ্জা ॥ ৭০
করে চৌর্য্যপনা, মাখন ছেনা,
কাপড়ে লয়েছো ঢেকে ।
দেবের দুর্লভ, এই দ্রব্য সব,
তোর রাগ-তরঙ্গ, দেখে অঙ্গ
যায় লো আমার জ্ব’লে।
আজি, বড়াই বুড়ীর, ভাঙ্গবো মুড়ি,
আয়ান দাদাকে ব’লে ॥ ৭২
ঐ বুড়ী অভাগী, পূরাণো ঘাগী,
ছিলো নষ্ট্রের রাজা ।
ওর, পরের মেয়ে, পরকে দিয়ে,
পর মজিয়ে মজা ॥ ৭৩
হলো পক্ককেশা, চক্ষু বসা,
দুঃখ-দশার শেষ ।
গায়ের চৰ্ম্ম দড়ি, হাতে নড়ি,
কাঁখে চুপড়ী বেশ ॥ ৭৪
বেটীর, উদর কোঙা, মাজ ভাঙ্গা,
উঠতে বসতে কাবু।
অন্ত নাই, দন্ত নাই,
ক্ষান্ত নাই যে তবু ॥৭৫
নাই, চলৎ-শক্তি, পরম ভক্তি—
পর মজাতে পেলে ।
ওটা, বিধির কৰ্ম্ম, নষ্টের ধৰ্ম্ম,
স্বভাব যায় না ম’লে ।। ৭৬
দিয়ে মন্দ দাঁড়া, বাজিয়ে কাড়া,
ঐ ত পাড়া জাগালে।
এ কে, সইতে পারে, ঐ তো ঘরে,
নন্দসুত লাগালে ॥ ৭৭
তখন, ঘুরিয়ে আঁখি, চন্দ্রমুখী
প্রতি কুটিলে বলে।
ফের্‌ ফের্‌, নহিলে ফের—
ঘটিবে তোর কপালে ॥ ৭৮
হয়ে, কাতর—উক্তি কন শক্তি,
ননদি । ছাড়ি দেহ ।
আমার ! প্রাণ হয়েছে, অগ্রগামী,
মিথ্যা ধর্‌বে দেহ ॥ ৭৯
***
আমার প্রাণ কি প্রকার, তাহ শুন,–

যেমন বারিগত মীন, দাতাগত দীন ॥
নদীগত তরি, ভক্তগত হরি ।।
যেমন বনগত পশু, মাতৃগত শিশু ।।
স্বামিগত সতী, ক্রিয়াগত গত ।।
জলগত মকর, চন্দ্রগত চকোর ।।
বৃক্ষগত লতা, জিহ্বাগত কথা ।।
আহারগত কায়, ধৰ্ম্মগত দয়া ।।
অর্থগত নর, পিত্তগত জ্বর ।।
উৎপন্নগত ধন, আশাগত মন ॥
ধনগত মান, আমার তেমনি কৃষ্ণগত প্রাণ ॥ ৮০
———————
সিন্ধু-ভৈরবী—আড়া।

কেমনে প্রাণ ধরি, না হেরে মাধব-মাধুরী ।
ধরে না, ননদি ! তোমার চরণে ধরি ।।
কৃষ্ণপ্রেম-তৃষ্ণানলে, তিষ্ঠে না মন গোকুলে,
জলে রাই-চাতকী,—বিনে কৃষ্ণ-প্রেম-বারি।।
গোকুল-রমণীগণে, গেলে কৃষ্ণ-দরশনে,
আমি, বিচ্ছেদ-হুতাশনে কেমনে তরি ॥
হরি ব্রহ্ম পরাৎপর, আমারে কি হলো পর,
আমি জানি পূৰ্ব্বাপর, আমারি হরি ।
যদি আমি বুঝাই মনে, মনোহর ভেবে না মনে,
মন তাতে মন-অভিমানে, মরে গুমরি।
পুরাইতে মনোরথ, কৃষ্ণপদে মন রত,
সংসারে বিরত মন দিবে-শর্ব্বরী। (ঙ)