ভিক্ষাগ্রহণ-বিধি

প্রতিপৃহ্যেপ্সিতং দণ্ডমুপস্থায় চ ভাস্করম্।
প্রদক্ষিণং পরীত্যাগ্নিং চরেদ্ভৈক্ষং যথাবিধি।। ৪৮।।
ভবৎপূর্ব্বং চরেদ্ভৈক্ষমুপনীতো দ্বিজোত্তমঃ।
ভবন্মধ্যস্ত রাজস্যো বৈশ্যস্তু ভবদুত্তরম্।। ৪৯।।
মাতরং বা স্বসারং বা মাতুৰ্ব্বা ভগিনীং নিজাম্।
ভিক্ষেত ভিক্ষাং প্রথমং যা চৈনং নাবমানয়েৎ।। ৫০।।
সমাহৃত্য তু তদ্ভৈক্ষ্যং যাবদন্নমমায়য়া।
নিবেদ্য গুরবেহশ্নীয়াদাচম্য প্রাঙ্খ খঃ শুচি।।৫১।।

ইঁহারা মনোমত ঐ দণ্ড ধারণ করিয়া সূৰ্য্যদেবের উপস্থান করিবেন, পরে অগ্নি প্রদক্ষিণ করিয়া বিধানানুসারে ভিক্ষা করিবেন। ৪৮

ব্রাহ্মণ-ব্রহ্মচারী উপনীত হইয়া ভবৎ শব্দের উচ্চারণ পূৰ্ব্বক ভিক্ষা যাত্রা করিবে, অর্থাৎ “ভবতি ভিক্ষাং দেহি” এই কথা বলিবে। ক্ষত্রিয়ের ভবৎ শব্দ মধ্যে করিয়া ভিক্ষা করিবে, অর্থাৎ “ভিক্ষাং ভবতি দেহি” এই কথা বলিবে। বৈশ্যে্রা শেষে ভবৎ শব্দের প্রয়োগ করিবে, অর্থাৎ “ভিক্ষাং দেহি ভবতি” এই কথা বলিবে। ৪৯

ইহারা প্রথমে মাতা বা ভগিনী কিম্বা মাতার সহোদর অথবা যে স্ত্রী ব্রহ্মচারীকে প্রত্যাখ্যান দ্বারা অবমাননা না করেন, তাহাদিগের নিকট ভিক্ষা যাঞ্চা করিবে। ৫০

উপনীত ব্রাহ্মণাদি এইরূপে ভিক্ষা সংগ্ৰহ করিয়া যে পরিমাণ অন্নে তৃপ্তি হইতে পারে, ছলশূণ্য মনে ততগুলি অন্ন গুরুকে নিবেদন করিা আচমন পূর্বক পূৰ্ব্বমুখে শুদ্ধভাবে ভোজন করিবে।। ৫১।।

Print Friendly, PDF & Email
%d bloggers like this: