দণ্ডধারণ বিধি

ব্রাহ্মণো বৈল্বপালাশৌ ক্ষত্রিয়ো বাটখাদিরৌ।
পৈলদৌদুম্বরৌ বৈশ্যো দণ্ডানর্হন্তি ধৰ্ম্মতঃ।। ৪৫।।
কেশান্তিকো ব্রাহ্মণস্য দণ্ডঃ কাৰ্য্যঃ প্রমাণতঃ।
ললাটসম্মিতো রাজ্ঞঃ স্যাত্ত নাসান্তিকো বিশঃ।। ৪৬।।
ঋজবস্তে তু সৰ্ব্বে স্যুরব্রণাঃ সৌম্যদর্শনাঃ।
অমুদ্বেগকরা নৃণাং সত্বচোহনগ্নিদূষিতাঃ।। ৪৭।

ব্রাহ্মণ-ব্রহ্মচারী বিল্ব অথবা পলাশের দণ্ড, ক্ষত্রিয়-ব্রহ্মচারী বট অথবা খরিদের দণ্ড এবং বৈশ্য-ব্ৰহ্মচারী পীলু অথবা উড়ুম্বরের দণ্ড ধারণ করিবে। ৪৫

কেশ পর্য্যন্ত প্রমাণে ব্রাহ্মণের দণ্ড করিতে হয়, ক্ষত্রিয়দিগের ললাট পর্যন্ত এবং বৈশ্যদিগের নাসা পৰ্য্যন্ত প্রমাণে দণ্ড করিতে হয়। ৪৬

ব্রাহ্মণাদির দণ্ডগুলি সরল হইবে, কোন স্থানে কোন ক্ষতচিহ্ন থাকিবে না, ত্বকযুক্ত হইবে, অগ্নি দ্বারা দূষিত হইবে না, দেখিতে এমনই সুন্দর হইবে, যেন দর্শনমাত্র মনুষ্যদিগের মনে কোনরূপে ভয়ের উদয় না হয়। ৪৭

Print Friendly, PDF & Email
%d bloggers like this: