মেখলার নিয়ম

মৌঞ্জী ত্রিবৃৎ সমা শ্লক্ষ্ণা কাৰ্য্যা বিপ্রস্য মেখলা।
ক্ষত্ৰিয়স্য তু মৌর্ব্বী জ্যা বৈশ্বস্য শণতান্তবী।। ৪২।
মুঞ্জালাভে তু কৰ্ত্তব্যাঃ কুশাশ্মান্তকবল্বজৈঃ।
ত্রিবৃতা গ্রন্থিনৈকেন ত্রিভিঃ পঞ্চভিরেব বা।। ৪৩।

ব্রাহ্মণদিগের সমান গুণত্রয়ে নিৰ্ম্মিত, সুখস্পৃশ্য, মুঞ্জময়ী মেখলা করিতে হয়, ক্ষত্রিয়দিগের মুর্ব্বাময়ী ধনুকের ছিলার ন্যায় ত্রিগুণিত এবং বৈশ্যের শণতন্তুনির্ম্মিত ত্রিগুণিত মেখলা করিয়ে হয়।

মুঞ্জাদির অপ্রাপ্তিপক্ষে ব্রাহ্মণেরা বুশের মেখলা করিবেন, ক্ষত্রিয়েরা অশ্মান্তক-নামক তৃণবিশেষের এবং বৈশ্যের বল্বজ তূণের মেখলা করিবে। ত্ৰিগুণ মেখলা স্বস্ব বংশের রীত্যনুসারে এক, তিন অথবা পঞ্চ গ্ৰন্থি দ্বারা বদ্ধ করবে। ৪৩

%d bloggers like this: