কই হল মোর মাছ ধরা

কই হল মোর মাছ ধরা। সারা কাল ধাপ ঠেলিয়ে            হলাম কেবল বল সারা।। একে যাই ধাপো বিলি ওঠে শুধু শামুকের ভারা। শুভ যোগ না পেলে সে মাছ বলে            হয় না কভু ক্ষার ছাড়া।। কেই বলা-কওয়া করে সেই মাছ প্রেম-সাগরে যে চেনে নদীর ত্রিধারা। আমি মরতে এলাম সেই নদীতে...

কর রে পেয়ালা কবুল শুদ্ধ ইমানে

কর রে পেয়ালা কবুল শুদ্ধ ইমানে। মিশবি যদি জাত সিফাতে এ তনু আখেরের দিনে৷ সাধিলে নূরের পেয়ালা খুলে যাবে রাগের তালা অচিন মানুষের খেলা দেখবি রে তুই দুই নয়নে।। জব্বর গুরুরে ধরে সাধ রে আর নূর জহরে এ চার করণ ভারি আছে রে অতি গোপনে।। ফান-ফিশ-শেখ বাকা ফানা ফানা-ফিল্লা...

করি কেমনে শুদ্ধ সহজ প্রেম সাধন

করি কেমনে শুদ্ধ সহজ প্রেম সাধন। প্রেম সাধিতে ফেঁপে ওঠে কাম-নদীর তুফান।। প্রেম-রত্ন ধন পাওয়ার আশে ত্রিপীনের ঘাট বাঁধলাম কষে। কাম-নদীর এক ধাক্কা এসে যায় বাঁধন ছাদন।। বলবো কি সে প্রেমের কথা কাম হইল প্রেমের লতা। কাম ছাড়া প্রেম যথাতথা নাই রে আগমন।। পরম গুরু প্রেম-পীরিতি...

কার বাড়ীতে কর গো বসত

কার বাড়ীতে কর গো বসত এ বাড়ী তো তোমার নয়।। বাড়ী করার বাঞ্ছা কর আগে গিয়ে মানুষ ধর গুরুর কাছে পাট্টা কর অনুমানে রেখ না। আপন ঘরের নাই ঠিকানা বাঞ্ছা কর মন পরকে চেনা লালন ফকির বলে, পাট্টা কর অনুমানে হবে না।। —————- ‘পল্লীসঙ্গীতে ভক্ত...

কারে আজ শুধাই সে কথা

কারে আজ শুধাই সে কথা। কি সাধনে পাব তারে যে আমার জীবন-দাতা।। শুনিতে পাই ধার্মিক সবে ইল্লিনে সিজ্জিনে যাবে উভয় সব কয়েদী রবে অচল-প্রাপ্ত কে ক্ষমতা।। ইল্লিন সিজ্জিন দঃখ-সখের ঠাঁই কোনখানেতে রেখেছেন সাঁই হেথা কেন দুঃখ-সুখ পাই কোথাকার ভোগ ভুগী কোথা।। যখনকার পাপ তখন ভুগি...

কারে দিব দোষ

             কারে দিব দোষ              নাহি পরের দোষ মনের দোষে আমি পড়লাম রে ফেরে।              আমার মন যদি বুঝিত              লোভের দেশ ছাড়িত লয়ে যেত আমায় বিরজা পারে।।              মনের গুণে কেহ হল মহাজন,              বেপার করে পেল অমূল্য রতন,              আমারে...

কারে বলবো আমার মনের বেদনা

কারে বলবো আমার মনের বেদনা। এমন ব্যথায় ব্যথিত মেলে না।।             যে দুখে আমার মন             আছে সদায় উচাটন             বললে সারে না।             গুরু বিনে আর না দেখি কিনার                         তারে আমি ভজলাম না।।             অনাথের নাথ যে জনা মোর             সে...

কারে বলে অটল-প্রাপ্তি ভাবি তাই

কারে বলে অটল-প্রাপ্তি ভাবি তাই । অঙ্গ লয় হইলে নির্বাণ, মুক্তি বলে তাও দোষাই।। দেখারে কয় অটল-প্রাপ্তি কিবা হবে সাথের সাথী ভজন কি সারা সেই অবধি কন্তুরের কি শান্তি নাই।। শিলা শালগ্রাম হওয়া অচল বলে দোষাই তাহা স্বর্গে যেতে সুখ পাওয়া সেও তো নহে চিরস্থায়ী।। কেহ যেয়ে...

কাল কাটালি কালের বশে

কাল কাটালি কালের বশে।             এবার যৌবন কাল             কামে চিত্ত কাল মন রে কোন কালে আর হবে দিশে।। যৌবন কালের কালে রঙ্গ দিলি মন, দিনের দিনে হারালি পিতৃধন;             গেল রবির জোর             আঁখি হল ঘোর কোনদিন ঘিরবে মহাকালে এসে।। যাদের সঙ্গে রঙ্গে রলি চিরকাল...

কাশী কি মক্কায় যাবি রে মন, চল রে যাই

কাশী কি মক্কায় যাবি রে মন, চল রে যাই। দোটানাতে ঘুরলে পথে সন্ধ্যে বেলায় উপায় নাই।।          মক্কাতে ধাক্কা খেয়ে           যেতে চাও কাশী স্থানে          এমনি জালে কাল কাটালে                   ঠিক না মানে কোথা ভাই।।          নৈবেদ্য পাকা কলা          দেখে মন ভোলে ভোলা...

কি আজব কলে রসিক বানিয়েছে কোঠা

কি আজব কলে রসিক বানিয়েছে কোঠা।। শূন্যভরে পোস্তা করে তার উপর ছাদ আঁটা।।            অনন্ত কুঠরি থরে থর            চারদিকে আয়না-মহল তার হাওয়ার পথ নাই, রূপ দেখা যায় মণি-মাণিক্যের ছটা।।            যেদিন যাবে রসিক চাঁদ সরে            হাওয়ার প্রবেশ হবে সেই ঘরে নিভাইলে রসের...

কি করি কোন পথে যাই মনে কিছু

কি করি কোন পথে যাই মনে কিছু           ঠিক পড়ে না। দোটানাতে ভাবছি বসে           ঐ ভাবনা।। কেউ বলে মক্কায় যেয়ে হজ করিলে            যাবে গোনা। কেউ বলিছে মানুষ ভজে            মানুষ হ’না।। কেউ বলে পড়লে কালাম পায় সে আরাম           ভেস্তেখানা। কেউ বলে ভাই ও সুখের ঠাঁই...

কি করি ভেবে মরি

কি করি ভেবে মরি,             মন-মাঝি ঠহর দেখি নে। ব্রহ্মা আদি খাইছে খাবি,১             সেই নদীর পার যাই কেমনে।। মাড়ুয়াবাদী যেমন ধারা, মাঝ দরিয়ায় ডুবিয়ে ভরা, দেশে যায় পড়িয়ে ধড়া             সেই দশা মূল ভাব না জেনে।। শক্তিপদে ভক্তিহারা, কপট ভাবের ভাবুক তারা, মন আমার...

কি সাধনে আমি পাই গো তারে

কি সাধনে আমি পাই গো তারে। ও সে ব্ৰহ্মা বিষ্ণু ধ্যানে পায় না যারে।। শূন্য শিখর যার নির্জন গোফা স্বরূপে সেই তো চন্দ্রের আভা ও সে আভা ধরতে চাই হাতে নাহি পাই কেমনে সে রূপ যায় গো সরে।। জেনে শাস্ত্র ভাল কেহ কেহ পঞ্চতাত্ত্বিক হলে জানতে পায় সেহি ও সে পঞ্চতত্ত্বের ঘর সেও তো...

কি সাধনে পাই গো তারে

কি সাধনে পাই গো তারে আমার মন অহৰ্নিশি চায় যাহারে।। পঞ্চ প্রকার মুক্তির বিধি অষ্টাদশ প্রকারে সিদ্ধি এসব কয় হেতুভক্তি ইহার বশ নয় আলেক সাঁইজী মেরে।। দান ব্ৰত তপ যজ্ঞ যত তাহাতে সাই হয় না রত সাধুশাস্ত্রে কয় সতত মনে কোনটা জানি সত্য করে।। ঠিক পড়ে প্রবর্তের ঘর সাধন...

কি সাধনে পাই গো তারে, যার নাম অধর এই সংসারে

কি সাধনে পাই গো তারে, যার নাম অধর এই সংসারে । মুনি ঋষি হদ্দ হল ধ্যান করে।। কেউ ফকির, কেউ হচ্ছে যোগী কেউ মোহান্ত, কেউ বৈরাগী কারও বা কথায় মন, সুতায় দেও গিরে।। ব্ৰহ্মজ্ঞানী খ্ৰীষ্টানেরা নাম-ব্ৰহ্ম সার বলেন তারা দরবেশ কয় বস্তু কোথায় দেখ নারে।। গুরুতত্ত্ব বিধি শোনা...

কি হবে আমার গতি

কি হবে আমার গতি কতই জেনে কতই শুনে ঠিক পড়ে না কোন প্রীতি।। মুচির কোটায় গঙ্গা র’ল কলার ডেগো সৰ্প হল সকলই ভক্তির বল আমার নাই কোন বল-শক্তি।। যাত্রা ভঙ্গ যার সনে সেহি বানর হনুমানে নিষ্ঠা গুণ রাম-চরণে সাধুর খাতায় তার সুখ্যাতি।। মেঘ-পানে চাতকের ধ্যান অন্য জল সে করে...

কিবা রূপের ঝলক দিচ্ছে দ্বিদলে

কিবা রূপের ঝলক দিচ্ছে দ্বিদলে। সে রূপ দেখলে নয়ন যায় ভুলে।। ফণি-মণি সৌদামিনী জিনি                         এরূপ উজলে।।             অস্থি-চর্ম শূন্যরূপ             আছে মহারসের কূপ                         বেগে ঢেউ খেলে। ও তার এক বিন্দু অপার সিন্ধু                        ...

কিবা শোভা দ্বিদলের ‘পরে

কিবা শোভা দ্বিদলের ‘পরে। এক রাশ মণি-মাণিক্যের রূপ ঝলক মারে।। আলোক-সম্ভব সে নিত্য গোলক তাহে বিরাজ করে পূর্ণ ব্রহ্মলোক;             হলে দ্বি-দল নির্ণয়             সব জানা যায় বাধা থাকে না সাধন-দ্বারে।। শত কিংবা সহস্রদল রস-রতি করে চলাচল;             দ্বি-দলেতে...

কিরূপ সাধনের বলে অধর ধরা যায়

কিরূপ সাধনের বলে অধর ধরা যায়। নিগূঢ় সন্ধান জেনে শুনে সাধন করতে হয়।। শাক্ততত্ত্ব সাধন করে পেত যদি সে চান্দে রে অজপা গুদড়ি টানে কুলের বাহির হয় সেই চরণ-বাঞ্ছায়।। বৈষ্ণবের ভজন ভাল তাই বলিয়ে ভক্তি ছিল ব্রহ্মজ্ঞানী যারা সদায় বলে তারা শাক্ত-বৈষ্ণবের নাহ মুল পরিচয়।।...
Page 1 of 212