পুচি বাবা, তোর গিটারখানা যে ধুলোয় লুটিয়ে কাঁদছে
তুমি আজ নেই। তুমি নেই আজ। রটেছে এ সংবাদ যে।
শরৎ আলোয় ঝলমল করা এ অক্টোবরে
এসেছিলে তুমি আনন্দ গালে আমাদের ঘরে
দীর্ঘশ্বাস আর হাহাকার ভারে অক্টোবর আজ কাঁপছে
তমোহর তোর গিটার যে তাই মাটিতে লুটিয়ে কাঁদছে।

সন্ধ্যা হলেই কান পেতে রাখি কলিং বেলের শব্দে
আশা হয় বুঝি বেজে ওঠে বেল তোর আঙুলের ছন্দে!
বাজে নাতো বেল, স্তব্ধ জগৎ
কান্নায় ভেজা শূন্য শরৎ;
কোজাগর চাঁদে চেয়ে দেখি তোর দগ্ধ মুখটি ভাসছে
পুচি বাবু, তোর গিটার জানি না কোন সুর আজ সাধছে।

কঠিন কবরে নামিয়েছি তোকে পিতার নিবিড় সঙ্গে
পিতা-পুত্রের বুক ভেঙে গেছে মূল্যবোধের ভঙ্গে
তমোহর তুই করবি এ দেশে তমসা হরণ
তাই এসেছিলি। মৃত্যুঞ্জয় হোস। কোনোমতে ভুলিস না পণ।
জ্ঞানপাপীদের হিংসা-দ্বেষের অবসান হোক। তাই যে
তমোহর, তোর গিটার আজকে সত্যের গান গাইছে।

সূত্র: দৈনিক প্রথম আলো, অক্টোবর ২১, ২০১১